‘আমরা এখন থেকে আর সংসদ সদস্য নই’

0
32
ছবি: সংগ্রহীত

(দিনাজপুর২৪.কম) জাতীয় সংসদের স্পিকারের কাছে আজ রোববার সশরীরে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন বিএনপির পাঁচ সংসদ সদস্য। স্পিকার তাদের পদত্যাগপত্র গ্রহণও করেছেন বলে জানিয়েছেন বিএনপি নেতা জি এম সিরাজ।

পদত্যাগপত্র জমা দিয়ে জাতীয় সংসদ থেকে বের হয়ে জি এম সিরাজ সাংবাদিকদের বলেন, ‘আমরা পাঁচ জন পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছি। বাকি দুজন পরে এসে জমা দেবেন।’

তিনি বলেন, ‘আমরা যে পাঁচ জন পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছি, এই মুহূর্ত থেকে আমাদের পদত্যাগপত্র গ্রহণ হয়ে গেল। আমরা এখন থেকে আর সংসদ সদস্য নই। স্পিকার গ্রহণ করেছেন। বাদ বাকি পদক্ষেপ উনি জাতি ও গণমাধ্যমকে জানিয়ে দেবেন।’

বিএনপির এই নেতা বলেন, একজন বিদেশে ও আরেকজন অসুস্থ থাকায় পরে তারাও সশরীরে পদত্যাগপত্র জমা দেবেন। এই সাত জনের সংসদে আসা, পদত্যাগ করা সবই দলের সিদ্ধান্তে হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, ‘আমরা লাখ লাখ মানুষের সামনে আনন্দের সঙ্গে পদত্যাগের ঘোষণা দিয়েছি। একদিন আগেও কেউ ক্ষমতা ছাড়তে চায় না। আমরা এক বছর এক মাস আগে ছেড়ে দিয়েছি স্বেচ্ছায়।’

২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর জাতীয় সংসদ নির্বাচনে বিএনপি জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট গড়ে ভোটে অংশ নিয়েছিল। সেই নির্বাচনে বিএনপির ছয় জন বিজয়ী হন। পরে সংরক্ষিত নারী আসনের একটি পায় দলটি। নির্বাচনে ব্যাপক কারচুপির অভিযোগ তুললেও সংসদে যোগ দেন তারা। এই নিয়ে তখন থেকেই নানা সমালোচনার মুখে পড়তে হয় দলের নীতিনির্ধারকদের।

জাতীয় সংসদ থেকে পদত্যাগ করা রুমিন ফারহানা বলেন, ‘আমাদের পদত্যাগে স্পিকার কিছুটা বিস্ময় প্রকাশ করেছেন। জানতে চেয়েছেন, আমরা কেন পদত্যাগ করছি? আমরা বলেছি, দলীয় সিদ্ধান্তের কথা।’

এর আগে বেলা ১১টা ২০ মিনিটে জাতীয় সংসদ ভবনে স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরীর দপ্তরে যান বিএনপির এই নেতাকর্মীরা। গতকাল শনিবার গোলাপবাগ গণসমাবেশে দলের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, ঘোষণার পরদিন আজ সংসদে গিয়ে সশরীরে পদত্যাগপত্র জমা দিতে গেলেন তারা।

সংসদে প্রবেশের সময় রুমিন ফারহানা সাংবাদিকদের জানান, তারা গতকালই ই-মেইলের মাধ্যমে পদত্যাগপত্র জমা দিয়েছেন। আজ সশরীরে জমা দিতে এসেছেন।

৩৫০ আসনের সংসদে বিএনপির সাত জন সংসদ সদস্য হলেন- উকিল আব্দুস সাত্তার (ব্রাহ্মণবাড়িয়া-২), হারুনর রশীদ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩), জি এম সিরাজ (বগুড়া-৭), আমিনুল ইসলাম (চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২), জাহিদুর রহমান (ঠাকুরগাঁও-৩), মোশাররফ হোসেন (বগুড়া-৪) ও রুমিন ফারহানা (সংরক্ষিত নারী আসন)।

এদের মধ্যে হারুন বিদেশে রয়েছেন। তিনি পদত্যাগপত্র স্বাক্ষর করে পাঠিয়েছেন বলে জানানো হয়। আব্দুস সাত্তার অসুস্থ থাকায় ই-মেইলে পাঠালেও সশরীরে পরে এসে পদত্যাগপত্র দেবেন। -ডেস্ক রিপোর্ট

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here