এবার পুতিনের বিরুদ্ধে গণহত্যার অভিযোগ বাইডেনের

0
72

(দিনাজপুর২৪.কম) এবার রাশিয়ার বিরুদ্ধে ইউক্রেনে গণহত্যা চালানোর অভিযোগ তুললেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন। এর আগে তিনি কয়েক বার রুশ প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনকে যুদ্ধাপরাধী ও স্বৈরশাসক দাবি করেছেন। তবে এবারই প্রথম গণহত্যার অভিযোগ আনলেন তিনি। তবে মঙ্গলবার তিনি বলেন, অর্ধেক পৃথিবী দূরে একজন স্বৈরশাসক যুদ্ধ ঘোষণা করেছেন এবং গণহত্যা চালাচ্ছেন। মঙ্গলবার যুক্তরাষ্ট্রের আইওয়া প্রদেশে এক অনুষ্ঠানে তিনি রুশ প্রেসিডেন্ট পুতিনের বিরুদ্ধে এ অভিযোগ তোলেন। এ খবর দিয়েছে জেরুজালেম পোস্ট।

বাইডেন তার বক্তব্যে বলেন, ইউক্রেন থেকে যেসব প্রমাণ পাওয়া যাচ্ছে তাতে স্পষ্ট রাশিয়া সেখানে গণহত্যা চালাচ্ছে। তবে গণহত্যা সংঘটিত হয়েছে কিনা সেটি আইনজীবীরাই জানাবেন, যদিও আমার মনে হয় সেটিই ঘটেছে। মঙ্গলবার বাইডেন আরেকটি ভাষণে বলেন, আমি একে গণহত্যাই বলছি, কারণ এটি আরও স্পষ্ট যে ইউক্রেনে আগ্রাসন চালিয়ে যেসব হত্যাকাণ্ড চালানো হয়েছে, তা মুছে ফেলার চেষ্টা করছেন পুতিন এবং এই প্রমাণগুলো আরও বৃদ্ধি পাচ্ছে।

যুদ্ধের কারণে জ্বালানির দাম বেড়ে যাওয়া নিয়ে যে উদ্বেগ সৃষ্টি হয়েছে তা নিয়ে বাইডেন বলেন, অর্ধেক পৃথিবী দূরে এক স্বৈরশাসক যুদ্ধ ঘোষণা করেছে, গণহত্যা চালাচ্ছে কিন্তু এটি মার্কিনিদের পরিবারের খরচ বাড়াবে না।

তিনি গ্যাসের দাম বৃদ্ধিকে ‘পুতিন প্রাইস হাইক’ বলেও আখ্যায়িত করেন।

উল্লেখ্য, আন্তর্জাতিক আইন অনুযায়ী, কোনো একটি জাতি বা বর্ণ বা ধর্মীয় গোষ্ঠীকে সম্পূর্ণ কিংবা আংশিকভাবে হত্যার প্রচেষ্টাকে গণহত্যা হিসেবে বিবেচনা করা হয়। জাতিসংঘের কনভেনশন অনুযায়ী, কোনো গোষ্ঠীর বিরুদ্ধে হত্যা, মানসিক বা শারীরিক নির্যাতন, বেঁচে থাকার জন্য ভয়ানক পরিস্থিতি সৃষ্টি এবং জন্মদানে বাধা দেয়ার মতো ঘটনাকে গণহত্যার অন্তর্ভুক্ত করা হয়। কোনো দেশের বিরুদ্ধে আনা সবথেকে বড় অভিযোগগুলোর মধ্যে একটি হচ্ছে গণহত্যা। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় জার্মানির নাৎসি বাহিনী ইহুদিদের বিরুদ্ধে যে হত্যাযজ্ঞ পরিচালনা করেছিল তা প্রকাশ করতেই প্রথম এই শব্দের ব্যবহার শুরু হয়। ১৯৪৮ সালে আন্তর্জাতিক আইনের অধীনে গণহত্যাকে অপরাধ হিসেবে ঘোষণা করা হয়।

স্নায়ুযুদ্ধ পরবর্তী সময়ে যুক্তরাষ্ট্র মোট সাত বার এই গণহত্যার অভিযোগ তুলেছে। এগুলো হচ্ছে, বসনিয়া, রুয়ান্ডা, ইরাক ও দারফুরে। এছাড়া ইয়াজিদিদের বিরুদ্ধে ইসলামিক স্টেটের জিহাদিদের হত্যাযজ্ঞ, উইঘুরদের ওপরে চীনের দমনমূলক আচরণ এবং রোহিঙ্গাদের বিরুদ্ধে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর চালানো বিশেষ অভিযানকেও গণহত্যা হিসেবে ঘোষণা করেছে যুক্তরাষ্ট্র।

পুতিনের বিরুদ্ধে বাইডেনের ‘গণহত্যার’ অভিযোগ আনার পরপরই প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভোলোদিমির জেলেনস্কি। এক টুইট বার্তায় প্রেসিডেন্ট বাইডেনের বক্তব্যকে ‘সত্য কথা’ বলে উল্লেখ করেছেন তিনি। একই সঙ্গে ইউক্রেনের পাশে দাঁড়ানোর জন্য যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি কৃতজ্ঞতাও প্রকাশ করেন জেলেনস্কি। -অনলাইন ডেস্ক

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here