কাতার বিশ্বকাপ ২০২২ : মরক্কোকে কাঁদিয়ে ফাইনালে ফ্রান্স

0
29

(দিনাজপুর টোয়েন্টিফোর ডটকম) কাতার বিশ্বকাপের দ্বিতীয় সেমিফাইনালে মরক্কোকে ২-০ গোলে হারিয়েছে ফ্রান্স। এ জয়ে আসরটির ফাইনাল নিশ্চিত করেছে ফরাসিরা। অন্যদিকে রূপকথার জন্ম দেওয়া মরক্কোর ইতি হলো। পুরো টুর্নামেন্টে অসাধারণ খেলে প্রথম আফ্রিকান দেশ হিসেবে বিশ্বকাপের সেমিফাইনালে ওঠা দলটি ফ্রান্সের কাছে আর পেরে উঠল না।

টানা দ্বিতীয় বিশ্বকাপের ফাইনালে ওঠা ফ্রান্স আগামী রোববার আর্জেন্টিনার বিপক্ষে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে মাঠে নামবে।

বুধবার আল বায়াত স্টেডিয়ামে রাত ১টায় ম্যাচটি শুরু। ফ্রান্সের জয়ে একটি করে গোল করেন থিও হার্নান্দেজ ও রানদাল কোলো মুনাই।

খেলার পঞ্চম মিনিটে এগিয়ে যায় ফ্রান্স। রাফায়েল ভারানের থেকে বল পেয়ে বক্সে ঢুকে পড়েন অঁতোয়ান গ্রিজমান। তার পাস ধরে ঠিকমতো শট নিতে পারেননি কিলিয়ান এমবাপ্পে। সেখানে তৈরি হয় জটলা। এমবাপ্পের দ্বিতীয় প্রচেষ্টায় প্রতিপক্ষের পায়ে লেগে বল চলে যায় বাঁ দিকে থিও হার্নান্দেজের কাছে ফাঁকা জায়গায়। কাঁধ সমান উঁচু বলে লাফিয়ে দারুণ অ্যাক্রোবেটিক শটে গোলটি করেন এসি মিলান ডিফেন্ডার।

শুরুতেই পিছিয়ে পড়া মরক্কো অবশ্য দমে যায়নি। পাঁচ মিনিট পরেই সমতা টানতে পারত তারা। কিন্তু আজ্জেদিন উনাহির দূরপাল্লার জোরাল শট ঝাঁপিয়ে ঠেকিয়ে দেন ফ্রান্স গোলরক্ষক হুগো লরিস।

ম্যাচের ১৭তম মিনিটে আবারও প্রতিপক্ষ শিবিরে হানা দেয় ফরাসিরা। এবার প্রতি-আক্রমণে ইব্রাহিমা কোনাতের পাস ধরে জোরাল শট নেন অলিভিয়ে জিরুদ, বল গোলরক্ষককে এড়ালেও পোস্ট এড়াতে পারেনি।

চোট পেয়ে মাঠ ছাড়েন অভিজ্ঞ ডিফেন্ডার রোমাঁ সাইস। বদলি নামেন সেলিম আমাল্লাহ। এতে বড় ধাক্কা খায় মরক্কো।

খেলার ৩৬তম মিনিটে দারুণ দুটি সুযোগ পেয়েও কাজে লাগাতে পারেনি ফ্রান্স। অহেলিয়া চুয়ামেনির পাস বক্সে পেয়ে এমবাপ্পের নেওয়া শট রুখে দেন আশরাফ হাকিমি। কিন্তু বল ফের চলে যায় চুয়ামেনির পায়ে। তিনি এবার খুঁজে নেন বক্সে অরক্ষিত অলিভিয়ে জিরুদকে। তার শট হয় লক্ষ্যভ্রষ্ট।

মরক্কো বিরতির আগের কয়েক মিনিটে প্রবল চাপ তৈরি করে। ৪৫তম মিনিটে দুর্ভাগ্য বাধা না হয়ে দাঁড়ালে গোলও পেতে পারত তারা। কর্নার থেকে উড়ে আসা বল ডিফেন্ডাররা পুরোপুরি ক্লিয়ার করতে ব্যর্থ হলে বক্সেই পেয়ে যান জাওয়াদ এল ইয়ামিক। তার বাইসাইকেল কিক পোস্টে লাগলে এগিয়ে থাকার স্বস্তিতে বিরতিতে যায় ফরাসিরা।

দ্বিতীয়ার্ধে ম্যাচে ফিরতে এক চেটিয়া আক্রমণ চালায় মরক্কো। তবে কিছুটা নিজেদের দোষে, কিছুটা ভাগ্য ও কিছুটা ফরাসি রক্ষণে গোল পাওয়া হয়নি তাদের।

উল্টো ম্যাচের ৭৯ মিনিটে ব্যবধান বাড়িয়ে বসে ফ্রান্স। উসমান দেম্বেলের বদলি নেমে ৪৪ সেকেন্ডের মাথায় জাতীয় দলের হয়ে অভিষেক গোল করেন মুনাই। ঠিক প্রথম গোলের মতোরই জটলা থেকে এমবাপ্পে গোলের জন্য শট নেন, তবে বল ফাঁকায় থাকা মুনাই পেলে আলতো টোকায় গোল উদযাপন করেন।

এরপর মরক্কো আরও কিছু শট নেয় গোল করার জন্য, তবে লক্ষ্যে রাখতে পারেনি। ফ্রান্সও বেশ কয়েকটি সুযোগ পেয়ে বঞ্চিত হয়। শেষ অবধি ২-০ গোলের জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে দিদিয়ের দেশমের দল।  -ডেস্ক রিপোর্ট

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here