ঘোড়াঘাটে পুত্রবধুকে একাধিকবার ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে লম্পট শ্বশুর এখন কারাগারে

0
83

মাহতাব উদ্দিন আল মাহমুদ (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরের ঘোড়াঘাটে পুত্রবধূকে একাধিকবার ধর্ষণ চেষ্টার অভিযোগে শ্বশুর লুৎফর রহমানকে (৫৫) গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠিয়েছে থানা পুলিশ। ২৮ মার্চ সোমবার রাতে পুত্র বধূ বাদী হয়ে থানায় এজাহার দায়ের করলে ওই রাতেই শ্বশুর লুৎফর রহমানকে গ্রেফতার করে থানা পুলিশ।
২৮ মার্চ সোমবার বেলা আনুমানিক ১১ টায় উপজেলার সিংড়া ইউনিয়নের সিংড়া গ্রামে রাণীগঞ্জ মহিলা কলেজ এলাকায় এই ঘটনা ঘটে।ভূক্তভোগী ওই পুত্রবধূ পাশ্ববর্তী নবাবগঞ্জ উপজেলার ভাদুরিয়া ইউনিয়নের শাল্টি মুরাদপুর গ্রামের।
পুত্র বধূ বলেন, গত ২ বছর আগে ঘোড়াঘাট উপজেলার সিংড়া গ্রামের লুৎফর রহমানের ছেলে আজিজুল ইসলামের সাথে আমার বিয়ে হয়। আমার স্বামী পেশায় একজন পাওয়ার টিলার চালক।ঘটনার দিন সকালে আমার স্বামী কাজে বাহিরে যায় এবং আমার শাশুড়ি টিকা নেওয়ার জন্য গিয়েছিল। বাড়িতে কেউ না থাকায় আমার শ্বশুর বাড়ির দুটি দরজা বন্ধ করে আমার হাত ধরে ঘরের ভিতরে নিয়ে যায় এবং অনৈতিক কাজ করার চেষ্টা করে। আমি তাকে অনেক ভাবে মিনতি করি আমাকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য। কিন্তু সে আমাকে ছেড়ে না দেওয়ায় আমি চিৎকার করলে আশপাশের লোকজন এগিয়ে আসে এবং আমার শ্বশুর পালিয়ে যায়।
তিনি আরো বলেন, এর আগেও আমার শশুর দুইবার আমার সাথে এরুপ আচরণ করেছে। আমি আমার স্বামী এবং শ্বাশুড়িকে বিষয়টি একাধিকবার বলেছি। কিন্তু তারা বিশ্বাস করেনি।
এদিকে গৃহবধূ চিৎকার করলে পাশ্ববর্তী এক নারী সেখানে এগিয়ে আসেন। সম্পর্কে ওই গৃহবধূর প্রতিবেশী ভাসুরের স্ত্রী হন।
প্রত্যক্ষ দর্শী ওই নারী বলেন, আমি চিৎকার শুনে দরজায় এসে দেখি, দরজা ভিতর থেকে বন্ধ। তখন জানালার কাছে গিয়ে দেখি তার শশুর তার হাত ধরে টানাটানি করছে এবং সে তাকে ছেড়ে দেওয়ার জন্য বিভিন্ন ভাবে আকুতি জানাচ্ছে।
ঘোড়াঘাট থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আবু হাসান কবির বলেন,নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে ভূক্ত ভোগী নারী এজাহার দায়ের করলে, তাৎক্ষণিক আমরা অভিযান পরিচালনা করে লুৎফর রহমানকে গ্রেফতার করি এবং আটক আসামিকে ম্ঙ্গলবার দিনাজপুরের বিজ্ঞ আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here