টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ : জয়ের সম্ভাবনা জাগিয়েও হারল বাংলাদেশ

0
53
ছবি: সংগৃহীত

(দিনাজপুর২৪.কম) টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে ভারতের বিপক্ষে দারুণ সম্ভাবনা জাগিয়ে হেরে গেল বাংলাদেশ। সুপার টুয়েলভের ম্যাচে ডার্কওয়ার্থ-লুইস-স্টার্ন পদ্ধতিতে ৫ রানে হেরেছে সাকিব আল হাসানের দল।

আজ বুধবার অ্যাডিলেডে গ্রুপ টু-তে খেলতে নামে দুদল। বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টা ম্যাচটি শুরু হয়। যেখানে প্রথমে ব্যাট করা ভারত লোকেশ রাহুল ও বিরাট কোহলির হাফসেঞ্চুরিতে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৬ উইকেট হারিয়ে ১৮৪ রান করে। ১৮৫ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে উড়ন্ত সূচনা পায় বাংলাদেশ। ৭ ওভারে বিনা উইকেটে ৬৬ রান করে।

তবে এরপরই বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হয়ে যায়। বৃষ্টির পর খেলা ফের শুরু হলে ডার্কওয়ার্থ-লুইস-স্টার্ন পদ্ধতিতে জয় পেতে বাংলাদেশের নতুন লক্ষ্য দাঁড়ায় ১৬ ওভারে ১৫১। তবে দারুণ রোমাঞ্চ জাগিয়ে শেষ পর্যন্ত ৬ উইকেট হারিয়ে ১৪৫ রান করতে পারে টাইগাররা।

বাংলাদেশ ইনিংসে বৃষ্টিতে খেলা বন্ধ হলে ১৭ রানে এগিয়ে থাকে। তবে বৃষ্টির পর নতুন লক্ষ্যে খেলা শুরুর প্রথম ওভারেই রান আউট হয়ে মাঠ ছাড়েন লিটন দাস। ২৭ বলে ৭টি চার ও ৩টি ছক্কায় ৬০ রান করেছেন এই ডানহাতি। এর আগে ২১ বলে হাফসেঞ্চুরি করেন তিনি।

এরপর নাজমুল হোসেন শান্তর বিদায়ের পর দ্রুত ফিরে যান আফিফ হোসেন, সাকিব আল হাসান, ইয়াসির আলী ও মোসাদ্দেক হোসেন। দলীয় ৯৯ থেকে ১০৮ রানে মধ্যে অর্থাৎ ৯ রানের ব্যবধানে ৪ উইকেট হারায় বাংলাদেশ। ধীর ব্যাটিং করা শান্ত ২৫ বলে ২১ করে মোহাম্মদ শামির বলে আউট হন। আর্শদীপের করা দলীয় ১২তম ওভারেই মাঠ ছাড়েন আফিফ হোসেন ও সাকিব। প্রথম বলে ব্যক্তিগত ৩ রানে তুলে মারতে গিয়ে সূর্যকুমার যাদবকে ক্যাচ দেন আফিফ। আর পঞ্চম বলে দীপক হুডাকে ক্যাচ ১৩ রানে ক্যাচ দেন সাকিব।

হার্দিক পান্ডিয়ার পরের ওভারে আরও দুটি উইকেটের পতন হয়। ওভারের দ্বিতীয় বলে ইয়াসির আলী ব্যক্তিগত ১ রানে আউট হন। আর পঞ্চম বলে মোসাদ্দেক হোসেন (৬) বোল্ড হন।

সপ্তম উইকেট জুটিতে অবশ্য ফের আশা জাগান নুরুল হাসান সোহান ও তাসকিন আহমেদ। ঝড়ো ব্যাট করে শেষ বল পর্যন্ত জয়ের সম্ভাবনা টেনে নিয়ে যান। এই জুটি ১৯ বলে ৩৭ রানের অপরাজিত পার্টনারশিপ গড়ে। তবে অল্পের জন্য জয় হাতছাড়া হলো। সোহান ১৪ বলে ২ চার ও এক ছক্কায় ২৫ এবং তাসকিন ৭ বলে এক চার ও এক ছক্কায় ১২ রানে অপরাজিত থাকেন।

ভারতীয় বোলারদের মধ্যে আর্শদীপ সিং ও হার্দিক পান্ডিয়া ২টি করে উইকেট পান।

টস হেরে এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নামা ভারতের ইনিংসে তৃতীয় ওভারে তাসকিন আহমেদের বলে রোহিত শর্মা ক্যাচ তুলে দেন। কিন্তু থার্ডম্যান অঞ্চলে থাকা হাসান মাহমুদ সহজ ক্যাচটি ফেলে দেন। তবে পরের ওভারেই নিজের প্রথম বলেই এই ডানহাতি পেসার রোহিতকে (২) ফেরান। তার বলে খোঁচা দিলে শটে থাকা ইয়াসির আলী ক্যাচ লুফে নেন।

ইনিংসে প্রথম থেকে ঝড় তোলেন ওপেনার লোকেশ রাহুল। অবশেষে তাকে ফেরান সাকিব আল হাসান। দলীয় দশম ওভারে তার বলে শর্ট ফাইন লেগে থাকা মোস্তাফিজুর রহমান ক্যাচ নেন। ডানহাতি এই ব্যাটার ৩২ বলে ৩টি চার ও ৪টি ছক্কায় ৫০ রান করেন।

ভারতের তৃতীয় উইকেট তুলে নেন সাকিব আল হাসান। ১৪তম ওভারে ভয়ঙ্কর সূর্যকুমার যাদবকে বোল্ড করেন বাংলাদেশ অধিনায়ক। এই উইকেট নিয়ে নিউজিল্যান্ডের টিম সাউদির সঙ্গে যৌথভাবে ফের টি-টোয়েন্টির সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি হলেন সাকিব। এই ফরম্যাটে বর্তমানে তার উইকেট সংখ্যা ১২৭টি। এরপর আরেক ভয়ঙ্কর ব্যাটার হার্দিক পান্ডিয়াকে ব্যক্তিগত ৫ রানে ইয়াসিরের ক্যাচ বানান হাসান মাহমুদ।

দীনেশ কার্তিককে রান আউট করে ফেরায় বাংলাদেশ। পরে নিজের তৃতীয় উইকেট হিসেবে অক্ষর প্যাটেলকে মাঠ ছাড়া করান হাসান মাহমুদ।

তবে দুর্দান্ত ফর্মে থাকা বিরাট কোহলিকে আউট করতে পারেনি বাংলাদেশ। শেষ পর্যন্ত এই ব্যাটার ৪৪ বলে ৬৪ রানে অপরাজিত থাকেন। ৮টি চার ও একটি ছক্কা হাঁকান তিনি। এদিন শ্রীলংকান গ্রেট মাহেলা জয়াবর্ধনেকে পেছনে ফেলে টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ইতিহাসে সর্বোচ্চ রানের মালিক হলেন কোহলি। ২৫ ম্যাচে তার রান ১০৬৫। সাবেক লংকান অধিনায়ক জয়াবর্ধনে ৩১ ম্যাচে ১০১৬ রান করেছিলেন। এছাড়া চলমান বিশ্বকাপেও সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক হিসেবে শীর্ষে উঠলেন কোহলি। অন্য ব্যাটার রবীচন্দ্রন অশ্বিন ১৩ রানে অপরাজিত থাকেন।

বাংলাদেশ বোলারদের মধ্যে সর্বোচ্চ ৩টি উইকেট পান হাসান মাহমুদ। ২টি উইকেট পান সাকিব।

এ ম্যাচ জিতে গ্রুপের শীর্ষে উঠে গেল ভারত। ৪ ম্যাচে ৩ জয় ও এক পরাজয়ে ৬ পয়েন্ট অর্জন করেছে রোহিত শর্মার দল। এক ম্যাচ কম খেলে ৫ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে দক্ষিণ আফ্রিকা। হেরে অবশ্য এখনও সেমিফাইনালের দৌড়ে টিকে রয়েছে বাংলাদেশ। ৪ ম্যাচে ৩ পয়েন্ট নিয়ে তিনে রয়েছে টাইগাররা। -ডেস্ক রিপোর্ট

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here