টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ‘ফেক ফিল্ডিং নিয়ে বাংলাদেশের অভিযোগ সঠিক ছিল’

0
55

(দিনাজপুর২৪.কম) বাংলাদেশ-ভারত ম্যাচের টাইগার ইনিংসের সপ্তম ওভারের ঘটনা। লিটন দাস অক্ষর প্যাটেলের বলে অফ-সাইডে শট নেন। অন্য প্রান্তে ছিলেন নাজমুল হোসেন শান্ত। যেখানে বাউন্ডারি লাইন থেকে বল ধরে উইকেটরক্ষক প্রান্তে থ্রো করেন অর্শদীপ সিং। তবে বল যখন পয়েন্টে ফিল্ডিং করা বিরাট কোহলির পাশ দিয়ে যাচ্ছিল, তখন কোহলি বল ধরে নন-স্ট্রাইকার প্রান্তে থ্রো করার অভিনয় করেন।

ক্রিকেটের আইনে এমন অভিনয় করাকে ‘ফেক ফিল্ডিং’ বলে। যা ২০১৭ সাল থেকে ‘আনফেয়ার প্লে’ হিসেবে ধরা হয়। অর্থাৎ কোনো ফিল্ডিং দল এমনটি করলে শাস্তি হিসেবে ব্যাটিং দলকে ৫ রান দেওয়া হবে ও বলটি ‘ডেড’ হিসেবে ধরা হবে।

চলমান টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে সুপার টুয়েলভের সেই ম্যাচ শেষে ভারতের কাছে ম্যাচ হেরে বিরাট কোহলির বিরুদ্ধে গুরুতর এই অভিযোগ তোলে বাংলাদেশ শিবির। টাইগার উইকেটরক্ষক-ব্যাটার নুরুল হাসানের অভিযোগ যথার্থ হলে অ্যাডিলেডে ম্যাচ জিতে যাওয়া উচিত ছিল বাংলাদেশের।

কোহলি বল ছোঁড়ার অভিনয় করলেও ফিল্ড আম্পায়াররা কোনো পদক্ষেপ নেননি বলে দাবি বাংলাদেশের তারকার। তবে এমন অভিযোগ আম্পায়ারদের কাছে করলেও তারা জানান, এমন কোনো কিছু তাদের নজরে আসেনি। বাংলাদেশ ম্যাচটি ৫ রানেই হেরে যায়।

এই ফেক ফিল্ডিং নিয়ে প্রচুর বিতর্ক উঠেছে। বিভিন্ন তারকারা আলোচনায়-সমালোচনায় যোগ দিচ্ছেন। এবার তাতে যোগ দিলেন ভারতের সাবেক ক্রিকেটার ও ক্রিকেট বিশ্লেষক আকাশ চোপড়া। তিনি বরং বাংলাদেশের অভিযোগ সঠিক বলেই মনে করেন।

এ নিয়ে আকাশ বলেন, ‘বাংলাদেশ সঠিক বিষয় নিয়েই অভিযোগ জানাচ্ছে। ওটা শতভাগ ফেক ফিল্ডিং ছিল। কোহলি বল হাতে না নিয়েও থ্রো করার ভঙ্গি করেছিল। মাঠে থাকা দুই আম্পায়ার এবং তৃতীয় আম্পায়ার যদি ব্যাপারটা দেখত, তাহলে নিশ্চিতভাবেই বাংলাদেশ ৫ রান পেনাল্টি হিসেবে পেত। কিন্তু তেমন কিছু ঘটেনি। কারণ, আম্পায়ারের চোখ থেকে এত বড় ঘটনা এড়িয়ে গিয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘বিষয়টি আম্পায়ারদের নজরে এলে তারা ৫ রান পেত। আর আমরাও ৫ রানে ম্যাচ জিতেছিলাম। ভারতীয় দল এই যাত্রায় বেঁচে গেলেও এর পর থেকে আম্পায়ারদের আরও সতর্ক হতে হবে।’ -নিউজ ডেস্ক

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here