টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ : বাংলাদেশকে বিদায় করে সেমিফাইনালে পাকিস্তান

0
51

(দিনাজপুর২৪.কম) টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে নিজেদের শেষ ম্যাচে দারুণ সম্ভাবনা নিয়ে মাঠে নামলেও ব্যাটিং ব্যর্থতায় হেরে গেল বাংলাদেশ। সুপার টুয়েলভে নিজেদের শেষ ম্যাচে ৫ উইকেটে জিতে আসরটি সেমিফাইনাল নিশ্চিত করল পাকিস্তান।

অথচ দিনের শুরুতে নেদারল্যান্ডসের কাছে দক্ষিণ আফ্রিকা হারলে বাংলাদেশ-পাকিস্তান দুদলের সামনেই শেষ চারে যাওয়ার সুযোগ তৈরি হয়। সমীকরণ ছিল যারা জিতবে তারাই সেমি নিশ্চিত করবে। তবে হেরে বিদায় নিল টাইগাররা। এই গ্রুপ থেকে ভারতের পর পাকিস্তান সেমিফাইনালে উঠল।

আজ রোববার অ্যাডিলেডে গ্রুপ টুয়ের ম্যাচ খেলতে নামে দুদল। বাংলাদেশ সময় সকাল ১০টায় ম্যাচটি শুরু হয়। যেখানে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নামা বাংলাদেশ শুরুটা ভালো করলেও নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৮ উইকেট হারিয়ে ১২৭ রান সংগ্রহ করে। জবাবে ব্যাট করতে নেমে ৫ উইকেট হারিয়ে ও ১২ বল বাকি থাকতে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় বাবর আজমের দল।

বাংলাদেশের দেওয়া ১২৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে উদ্বোধনী জুটিতে ৫৭ রান তোলে পাকিস্তান। অবশেষে বাবর আজমকে ফিরিয়ে জুটি ভাঙেন নাসুম আহমেদ। দলীয় ১১তম ওভারে বাবর তুলে মারতে গেলে খোঁচা লেগে মোস্তাফিজুর রহমানের ক্যাচে পরিণত হন ব্যক্তিগত ২৫ রানে।

পরের ওভারেই আরেক ওপেনার মোহাম্মদ রিজওয়ানকে ফেরান এবাদত হোসেন। ৩২ বলে ৩২ করে পয়েন্টে থাকা নাজমুল হোসেন শান্তকে ক্যাচ দেন তিনি। মাঝে মোহাম্মদ নওয়াজকে রান আউট করে দ্রুতই ফেরান লিটন দাস।

অন্যদিকে ঝড়ো ইনিংস খেলা মোহাম্মদ হারিস শেষ দিকে সাকিব আল হাসানের বলে আউট হন। ১৮ বলে একটি চার ও ২টি ছক্কায় ৩১ করেন তিনি। এরপর ইফতিখার আহমেদ দ্রুত ফিরে যান মোস্তাফিজুর রহমানের বলে। তবে ১৪ বলে ২৪ রানে অপরাজিত থেকে দলকে জিতিয়েই মাঠ ছাড়েন শান মাসুদ।

বাংলাদেশ বোলারদের মধ্যে সাকিব, মোস্তাফিজ, নাসুম ও এবাদত একটি করে উইকেট পান।

টস জিতে এর আগে প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে বাংলাদেশের ২১ রানের উদ্বোধনী জুটির পর বিদায় নেন লিটন দাস। তৃতীয় ওভারে শাহীন শাহ আফ্রিদির বলে শান মাসুদকে ক্যাচ দেন এই ব্যাটার। ৮ বলে ১০ রান করেন তিনি। ১১তম ওভারে জোড়া উইকেটের পতন হয় বাংলাদেশের। চতুর্থ ও পঞ্চম বলে সৌম্য সরকার ও সাকিব আল হাসানকে ফিরিয়ে হ্যাটট্রিকের সম্ভাবনা জাগান শাদাব খান।

চতুর্থ বলে শাদাবের বল রিভার্স সুইপ করতে গেলে শর্টে শান মাসুদের ক্যাচে ধরা পড়েন ১৭ বলে ২০ রান করা সৌম্য। পরের বলেই এলবি হন বাংলাদেশ অধিনায়ক সাকিব। যদিও এই আউটটি কিছুটা বিতর্কিত ছিল। কেননা আম্পায়ার এলবি আউট দিলে রিভিউ নেন সাকিব। যেখানে রিপ্লেতে দেখা যায় পায়ের আগে বল ব্যাটে লেগেছিল। আলট্রা এজে স্পাইক দেখা যায়। জিম্বাবুয়ের টিভি আম্পায়ার ল্যাংটন রুসেরে শেষ পর্যন্ত ফিল্ড আম্পায়ারের এলবিডব্লুর সিদ্ধান্তই বহাল রাখেন। যদিও মাঠ ছাড়ার আগে মাঠে আম্পায়ারদের সঙ্গে আলোচনা করে হতাশ হতে দেখা যায় শূন্য রানে বিদায় নেওয়া সাকিবকে।

চলমান বিশ্বকাপে ও টি-টোয়েন্টি আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ারে দ্বিতীয় হাফসেঞ্চুরির দেখা পান ওপেনার নাজমুল হোসেন শান্ত। ৪৬ বলে তিনি ফিফটি করে। তবে এরপর আর ইনিংস বড় করতে পারেননি। ১৪তম ওভারে ইফতিখার আহমেদের বলে বোল্ড হন। ৪৮ বলে ৭টি চারে ৫৪ করেন তিনি।

দলীয় ১৭তম ওভারে ফের জোড়া ধাক্কা খায় বাংলাদেশ। শাহীন শাহ আফ্রিদির বলে মোসাদ্দেক হোসেন বোল্ড হওয়ার পর ক্যাচ তুলে দেন নুরুল হাসান সোহান। আফ্রিদি নিজের শেষ ওভারে তাসকিনকেও তুলে নেন। তবে ২০ বলে ২৪ রানে অপরাজিত থাকা আফিফ হোসেন সংগ্রহ এই পর্যন্ত নিতে সাহায্য করেন।

পাকিস্তান বোলারদের মধ্যে ৪ ওভারে ২২ রানে ৪ উইকেট নেন শাহীন শাহ আফ্রিদি। ২টি উইকেট পান স্পিনার শাদাব খান। -ডেস্ক রিপোর্ট

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here