দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলায় বেগুন চাষে সফল কৃষক

0
61

(দিনাজপুর২৪.কম) বেগুন চাষে সফল হয়েছেন দিনাজপুরের ফুলবাড়ীর সামিউল ইসলাম (সামু)সহ সবজি চাষের পাশাপাশি বেগুন চাষ করে লাভবান হচ্ছেন স্থানীয় অনেক কৃষকরা। শুরুতেই বেগুনের দামও ভাল পাওয়া যায়। বর্তমানে পরিবহণ ও যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো থাকায় এলাকার চাহিদা মিটিয়ে এ বেগুন যাচ্ছে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন উপজেলায়।

কৃষক সামিউল ইসলাম সামু দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলার শিবনগর ইউনিয়নের ঘাটপাড়া গ্রামের বাসিন্দা তিনি গত কয়েক বছর থেকে বেগুন চাষ করে আসছে। এ বছর তিনি ১০কাঠা জমিতে বেগুন চাষ করেছেন। ১০ কাঠা জমিতে বেগুন চাষ করতে সবমিলে তার ২০ হাজার টাকা খরচ হয়েছে।

এ বছর বাজারে বেগুনের চাহিদা বেশি। তাই খরচের দ্বিগুণ টাকার বেগুন বিক্রি করে লাভবান হয়েছেন তিনি। এর আগে এই জমিতে বিভিন্ন সবজি চাষ করে ভালো ফলন না পেয়ে যখন লোকসানের মুখে জর্জরিত, ঠিক তখনি বেগুন চাষ করে লাভের মুখ দেখেন এ কৃষক।

সরেজমিনে দেখা যায়, বাজারে বিক্রির জন্য ক্ষেত থেকে বেগুন সংগ্রহ করছেন সামিউল ইসলাম ও তার ভাই রতন আলীসহ সামিউলের স্ত্রী নাজমা বেগম।

সামিউল ইসলাম বলেন, আগের সপ্তাহ ১৩২০ কেজি বেগুন তুলেছি, আর আজ ৩০০ কেজি বেগুন উঠাইলাম। তিন বছর পূর্বে বাৎসরিক চুক্তিতে ১০ কাঠা জমি বর্গা নেই। সেখানে বিভিন্ন শাকসবজি চাষের পাশাপাশি জমিতে বেগুন চাষ করি। এবার বেগুনের বা¤পার ফলন হয়েছে। এতে আমি অনেক লাভবান হয়েছি।
তিনি আরও বলেন, সব মিলিয়ে আমার যা খরচ যা হয়েছে সেটা তুলতে পেরেছি। এছাড়া ক্ষেতে যা বেগুন আছে তা বিক্রি করলে দ্বিগুন কিছু টাকা পাওয়া যাবে। জানা যায়, বেগুন চাষি সামিউল ইসলাম সাফল্য দেখে স্থানীয় এলাকার অনেক কৃষক এখন শীতের সবজি হিসাবে বেগুন চাষ শুরু করেছেন ।

উপজেলার বড় বড় হাটের পাশাপাশি কৃষি জমির পাশ দিয়ে যাতায়াতের সুবিধা থাকায় এলাকার কৃষকের কাছ থেকে পাইকাড়রা সরাসরি শীতের সবজিসহ অন্যান্য ফসল ক্রয় করতে পারে।তাই এখানকার কৃষককে খুব একটা বাজারে নিয়ে বেচতে হয় না। এ বছর বেগুন চাষিদের ক্ষেত থেকে অনেক পাইকাড় তাদের বেগুন ক্রয় করেছেন।

ঢাকা থেকে বেগুন ক্রয় করতে আসা ব্যবসায়ী আব্দুল কাদের বলেন, আমি দিনাজপুরের ফুলবাড়ী উপজেলা থেকে বিভিন্ন সবজি ক্রয় করে ঢাকা পাঠাই। এ বছর সামিউলের কাছ থেকে বেগুন কিনে ঢাকা পাঠিয়েছি।

ফুলবাড়ী উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মোছাঃ রুম্মান আক্তার বলেন,ফুলবাড়ী উপজেলায় শীতের শাক সবজি চাষ দিনে দিনে বৃদ্ধি পাচ্ছে। এবছর ১৫৫ হেক্টর জমিতে শীতের সবজি চাষের লক্ষমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে। আমরা শীতের সবজি চাষের উপরে মাঠ পর্যায়ের কৃষকদের বিভিন্ন বিষয়ের উপরে পরামর্শ প্রদান ও প্রদর্শনী করছি। শীতের সবজি চাষে সরকারী সহয়াতা হিসাবে বীজ ও রাসায়নিক সার বিতরন করা হয়েছে। -ডেস্ক

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here