দিনাজপুর জেলা জামায়াত নেতা এ্যাডভোকেট আবুল কাশেমের জানাযা ও দাফন সম্পন্ন

0
80

মাহবুবুল হক খান (দিনাজপুর২৪.কম) দিনাজপুরের ইসলামী আন্দোলনে নন্দিত ব্যক্তিত্ব, সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলনের অগ্রজ নেতা, প্রবীণ আইনজীবী, বর্ষিয়ান রাজনীতিবিদ, দিনাজপুর জেলা জামায়াতে ইসলামীর সাবেক নায়েবে আমীর এ্যাডভোকেট আবুল কাশেমের জানাযা ও দাফন সম্পন্ন হয়েছে। বৈরী আবহাওয়া উপেক্ষা করে হাজার হাজার নেতা-কর্মীসহ বিপুলসংখ্যক মুসল্লি নামাজে জানাযায় অংশগ্রহণ করেন।
বুধবার (১৪ সেটেম্বর-২০২২) সকালে দিনাজপুর জেলা আইনজীবী সমিতি প্রাঙ্গণে প্রথম ও দিনাজপুর গোর-এ-শহীদ বড় ময়দানে দ্বিতীয় জানাযা শেষে ফরিদপুর গোরস্থানে মরহুমের লাশ দাফন করা হয়। এ্যাডভোকেট আবুল কাশেমের মৃত্যুতে বুধবার সকাল ১১টায় দিনাজপুর আইনজীবী সমিতিতে ফুলকোর্ট রেফারেন্স ও শোকসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
দিনাজপুর জেলা আইনজীবী সমিতির জানাযায় অংশ নেন দিনাজপুর জেলা ও দায়রা জজ মোঃ জাবিদ হোসেন, চীফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ জুলফিকার আলী, দিনাজপুর জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাডভোকেট মোঃ একরামুল আমীন, সাবেক সভাপতি নুরুজ্জামান জাহানীসহ প্রবীন ও নবীন আইনজীবীবৃন্দ। এই জানাযা নামাজে ইমামতি করেন আইনজীবী সমিতির সাবেক ধর্ম ও সমাজ কল্যাণ সম্পাদক এ্যাডভোকেট মাঈনুল আলম।
দিনাজপুর গোর-এ-শহীদ বড় ময়দানের জানাযা নামাজে ইমামতি করেন জামায়াতে ইসলামীর কেন্দ্রীয় কর্মপরিষদ সদস্য ও রংপুর-দিনাজপুর অঞ্চলের সহকারী পরিচালক অধ্যক্ষ মাওলানা মমতাজ উদ্দীন। জানাজা নামাজের পূর্বে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন দিনাজপুর জেলা (উত্তর) আমীর প্রিন্সিপাল আনিসুর রহমান, জেলা বিএনপির সভাপতি ও সদর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট মোঃ মোফাজ্জল হোসেন দুলাল, জাতীয় পার্টির কেন্দ্রীয় কমিটির সাংগঠনিক সম্পাদক ও বোচাগঞ্জ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এ্যাডভোকেট মোঃ জুলফিকার হোসেন ও মরহুমের বড় পুত্র মোঃ বদরুদ্দোজা মাসুম।
জানাযা নামাজে অংশ নেন জামায়াতে ইসলামীর রংপুর-দিনাজপুর অঞ্চলের টীম সদস্য, দিনাজপুর জেলা জামায়াতের সাবেক আমীর ও চিরিরবন্দর উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলহাজ্ব আফতাব উদ্দীন মোল্লা, দিনাজপুর জেলা (উত্তর) জামায়াতের নায়েবে আমীর এ্যাডঃ মাহবুবুর রহমান, জেলা সেক্রেটারী মাওলানা রবিউল ইসলাম, বিরল উপজেলার সাবেক ভাইস চেয়ারম্যান জামায়াত নেতা অধ্যক্ষ মাওলানা আফজালুল আনাম, দিনাজপুর জেলা (দক্ষিন) আমীর মোঃ আনোয়ারুল ইসলাম, জেলা সেক্রেটারী মুহাদ্দিস ড. এনামুল হক, জেলা জাগপা’র সভাপতি আলহাজ্ব মোঃ রকিব উদ্দীন চৌধুরী মুন্না, কাহারোল উপজেলার সাবেক চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা মামুনুর রশীদ মামুন, দিনাজপুর শহর জামায়াতের আমীর সিরাজুস সালেহীন, দিনাজপুর শহর ছাত্রশিবিরের সভাপতি ও কেন্দ্রীয় কার্যকরী পরিষদ সদস্য আবুল কালাম আজাদ, মরহুমের ছোট পুত্র মারুফুল ইসলাম সুমনসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দল ও সামাজিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ
মরহুম এ্যাডভোকেট আবুল কাশেম দিনাজপুরে জামায়াতে ইসলামীর প্রতিষ্ঠাতাদের অন্যতম একজন ছিলেন। তিনি শহর জামায়াতের আমীর, জেলা জামায়াতের সেক্রেটারী, জেলা নায়েবে আমীরসহ রাজনৈতিক জীবনে তৃণমূল থেকে উচ্চতর বিভিন্ন দায়িত্ব পালন করেছেন। মৃত্যুর আগ পর্যন্ত তিনি গাউসতলা জামে মসজিদের মোতাওয়াল্লী ছিলেন। এছাড়া তিনি তানজিমুল মিল্লাত ট্রাষ্টসহ বিভিন্ন সামাজিক কর্মকান্ডের সাথেও জড়িত ছিলেন। তাঁর মৃত্যুর মধ্য দিয়ে দিনাজপুর জামায়াতে ইসলামী কিছুটা অভিভাবক শূন্য হয়ে গেল। বিভিন্নজন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এমন স্ট্যাটাস প্রদান করেছেন।
উল্লেখ্য, গত ১৩ সেপ্টেম্বর-২২ মঙ্গলবার সকাল ১১টা ১০ মিনিটের সময় দিনাজপুর শহরের গনেশতলাস্থ নিজ বাসভবনে ইন্তেকাল করেন। প্রায় শতবর্ষী এই ইসলামী চিন্তাবিদ পারিবারিক জীবনে ২ কন্যা ও ২ পুত্র সন্তানের জনক ছিলেন। তিনি আত্মীয়-স্বজন ও রাজনৈতিক সহকর্মীসহ অসংখ্য গুনগ্রাহী রেখে গেছেন।
বিএনপিসহ বিভিন্ন মহল শোক
তাঁর মৃত্যুতে জেলা বিএনপির সভাপতি এ্যাডভোকেট মোঃ মোফাজ্জল হোসেন দুলাল ও সাধারণ সম্পাদক বখতিয়ার আহমেদ গভীর শোক প্রকাশ করেছেন। এক শোক বার্তায় নেতৃবৃন্দ মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। মরুহুম আবুল কাসেমের মৃত্যুতে জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি এ্যাডভোকেট মোঃ একরামুল আমিন শোক প্রকাশ, মরহুমের রুহের মাগফিরাত কামনা ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন। এছাড়াও আবুল কাসেমের মৃত্যুতে বিভিন্ন মহল শোক প্রকাশ, রুহের মাগফিরাত কামনা ও শোক সন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়েছেন।

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here