পরশ-তাপসকে পাশে নিয়ে কাঁদলেন শেখ হাসিনা

0
64
(দিনাজপুর২৪.কম) ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে সপরিবারে নির্মম হত্যাকাণ্ডের ঘটনা স্মরণে শেখ ফজলে শামস পরশ ও ফজলে নূর তাপসকে পাশে নিয়ে কেঁদেছেন। জড়িয়ে ধরেছেন একে অপরকে এবং তাদের কান্না কাঁদিয়েছে আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে।
মঙ্গলবার (৩০ আগস্ট) রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে ঢাকা মহানগর আওয়ামী লীগ উত্তর-দক্ষিণের আয়োজনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৪৭তম শাহাদাত বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবসের স্মরণ-সভায় এই আবেগঘন মুহূর্ত দেখলো জাতি।
পঁচাত্তরের ১৫ আগস্টের রাতে তৎকালীন যুবলীগ চেয়ারম্যান শেখ ফজলুল হক মনি ও আরজু মনির বেঁচে যাওয়া দুই সন্তান হলেন আওয়ামী যুবলীগের চেয়ারম্যান পরশ ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র তাপস। ১৫ আগস্ট বিদেশে থাকার কারণে ভাগ্যক্রমে বেঁচে যাওয়া বঙ্গবন্ধু কন্যা পরশ-তাপসকে পাশে নিয়ে দলের নেতাকর্মীদের সামনে অশ্রুসিক্ত হয়ে পড়েন আজ।

সভায় মঞ্চে উপস্থিত ছিলেন শেখ মনির ছোট ছেলে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র ফজলে নূর তাপস। তিনি স্মরণ সভায় বক্তব্যও রাখেন। আর মঞ্চের সামনে প্রথম সারিতে বসা ছিলেন শেখ মনির বড় ছেলে শেখ ফজলে শামস পরশ। আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য শুরু করেন। তিনি তার বক্তব্যে ১৫ আগস্টের নির্মম হত্যাকাণ্ডের ঘটনা স্মরণ করতে গিয়ে আবেগতাড়িত হয়ে পড়েন।

এসময় তিনি বলেন, এখানে তাপস আছে, পরশ আছে। পরশ উঠে আসো। আওয়ামী লীগ সভাপতির একথা শুনে পরশ সামনে থেকে মঞ্চের দিকে উঠে আসতে থাকনে। বড় ভাই পরশ মঞ্চে উঠে আসলে ছোট ভাই তাপস এগিয়ে গিয়ে জড়িয়ে ধরেন।
এসময় দুই ভাই একে অপরকে জড়িয়ে ধরে আবেগতাড়িত হয়ে অশ্রুসিক্ত হয়ে পড়েন। পরে বঙ্গবন্ধু কন্যা পরশ-তাপস দুই ভাইকে তার ডায়াসের পাশে দাঁড়াতে বলেন। এসময় আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনা, পরশ ও তাপসসহ স্মরণ সভায় উপস্থিত নেতাকর্মীদের অনেকে আবেগতাড়িত হয়ে পড়েন এবং এক আবেগঘন পরিবেশের সৃষ্টি হয়। -অনলাইন ডেস্ক

 

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here