বদলা নেওয়ার ‘হুঁশিয়ারি’ ইরানের

0
61

(দিনাজপুর২৪.কম) ইরানের দক্ষিণাঞ্চলীয় শিরাজ শহরে শিয়াদের শাহ চেরাগ মাজারে গতকাল বুধবার অতর্কিতে হামলা চালিয়েছে তিন বন্দুকধারী। এতে এখন পর্যন্ত নারী ও শিশুসহ ১৫ জনের নিহতের খবর পাওয়া গেছে। আহত হয়েছেন অন্তত ৪০ জন। এই হামলার দায় স্বীকার করেছে ইসলামী জঙ্গি সংগঠন আইএসআইএস।

ইরানের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, তারা অস্ত্রধারী হামলাকারীদের গ্রেপ্তার করেছে। দেশটির রাষ্ট্রীয় সংবাদ মাধ্যম এই হামলার জন্য তাকফিরি সন্ত্রাসীদের দায়ী করেছে। তাকফিরি শব্দটি সুন্নি ইসলামিক গোষ্ঠীগুলিকে বোঝায় বলে প্রতিবেদনে বলা হয়েছে।

দেশটির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আহমদ ভাহিদি শিরাজে মাজারে হামলার জন্য দেশজুড়ে বিক্ষোভকে দায়ী করেছেন। সেইসঙ্গে দেশটির প্রেসিডেন্ট ইব্রাহিম রাইসি বলেছেন, ইরান এই হামলার জবাব দেবে।

এই হামলার দায় আইএস স্বীকার করার আগে রাইসি বলেন, অভিজ্ঞতা বলছে, ইরানের শত্রুরা জাতির ঐক্যবদ্ধে বিভক্তি তৈরি করতে ব্যর্থ হওয়ার পর সহিংসতা ও সন্ত্রাসের মাধ্যমে প্রতিশোধ নেয়।

তিনি আরও বলেছেন, অবশ্যই এমন অপরাধের জবাব দেওয়া হবে। যারা এই হামলার পরিকল্পনা ও পরিচালনা করেছে তাদের শিক্ষা দেবে নিরাপত্তা ও আইন প্রয়োগকারী বাহিনী।

এদিকে হামলার প্রত্যক্ষদর্শী ও বেঁচে যাওয়া এক ব্যক্তি আল-জাজিরাকে বলেন, আমরা মাজারে প্রার্থনা করার প্রস্তুতি নিচ্ছিলাম, এই সময় গুলি শব্দ শুনি। তখন আমরা অন্য পাশ দিয়ে পালানোর চেষ্টা করি এরপরেই বুঝতে পারলাম আমার শরীর দিয়ে রক্ত ঝরছে।

তিনি আরও বলেন, আমি দেখতে পারিনি কে গুলি ছুড়তেছিল, কিন্তু এটি রাস্তা থেকে শুরু হয়েছিল এবং মাজারের দিকে আসছিল। যাদের দেখেছে তাদেরকেই গুলি করেছে তারা। আমি বেশ কয়েকজন হতাহতকে দেখেছি কিন্তু হামলাকারীদের দেখি নি।

তেহরান বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়ার্ল্ড স্টাডিজ বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ফুয়াদ ইজাদি বলেন, বন্দুকধারীদের উদ্দেশ ছিল উপাসকদের হামলা করা। -নিউজ ডেস্ক

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here