বিরামপুরে নবান্ন উৎসব পালনের জন্য ধান কাটতে ব্যস্ত কৃষক

0
56

মোঃ নজরুল ইসলাম (দিনাজপুর২৪.কম)  শস্য ভা-ারখ্যাত দিনাজপুরের খাদ্য উদ্বৃত্ত বিরামপুর উপজেলায় কৃষকরা আমন ধান কেটে নতুন ধানের চাল দিয়ে নবান্ন উৎসব পালনের প্রস্তুতি ব্যস্ত সময় পার করছেন।
জানা গেছে, ঐতিহ্যগত ভাবে প্রতি বছর আমন ধান কেটে নতুন ধানের চাল দিয়ে তৈরি খাবার খাওয়ার দিনটিকে এ এলাকার মানুষ নবান্ন উৎসব হিসাবে পালন করে থাকেন। এই উৎসবে পাড়ায় মহল্লায় চলে নানা আয়োজন। আত্মীয় স্বজনদের ডেকে খাওয়ানো হয় নতুন চালের ক্ষির-পায়েস। বিরামপুর এলাকায় এবার বন্যা বা প্রাকৃতিক দূর্যোগ মুক্ত ভাবে বেড়ে উঠা আমন ধানের আশাতীত ফলনের প্রত্যাশায় কৃষকরা বুক বেঁধে আছে। অগ্রহায়ণ মাসের ১লা দিনে নবান্ন উৎসব পালনের জন্য কৃষকরা আমন ধান কাটা ও মাড়াইয়ের জন্য উঠান ও খুলিয়ান প্রস্তুত করে ফেলেছেন। কৃষক পরেবারের নারীরা বাড়ি-ঘর ধুয়ে মুছে পরিস্কার পরিচ্ছন্নতার কাজ শুরু করেছেন।
উপজেলার মিরপুর গ্রামের চাষী আমজাদ হোসেনের জমিতে ধান কাটার শ্রমিকরা জানান, নতুন চাল দিয়ে নবান্ন উৎসব পালনের জন্য তারা আমন ধান কাটা ও মাড়াই নিয়ে ব্যস্ত সময় পার করছেন।
বিরামপুর উপজেলা কৃষি অফিসার কৃষিবিদ নিকছন চন্দ্র পাল জানান, বিরামপুর উপজেলার পৌর এলাকা ও ৭টি ইউনিয়নে এবার ১৭ হাজার ৪৪৫ হেক্টর জমিতে আমন রোপন করা হয়। উপজেলায় এবার ৭৮ হাজার ৮৫০ মেট্রিক টন আমন উৎপাদনের লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছে। আমনের চাষ বৃদ্ধির জন্য কৃষি সম্প্রসারণ বিভাগের উদ্যোগে ৪৭০টি ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক কৃষক পরিবারকে বিনামূল্যে সার ও বীজ প্রদান করা হয়েছে। এছাড়া উপজেলা কৃষি দপ্তর ও মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাগণ নিয়মিত ভাবে চাষীদের প্রয়োজন মাফিক পরামর্শ ও কারিগরী সহায়তার মাধ্যমে আমনের ভালো ফলনে বিশেষ ভ’মিকা রেখেছেন। কৃষকদের রোপিত জাতের মধ্যে রয়েছে ব্রি-৭৫,৮৭,৯০, গুটি সর্না, সর্না-৫, ব্রি-৩৪, ৪৯, ৫১, ৫২, ৮০, ৯০ এবং বিভিন্ন ব্র্যান্ডের হাইব্রিড জাত।

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here