বিশ্বকাপের উদ্বোধনীতে থাকছে যেসব চমক

0
33
প্রতীকী ছবি

(দিনাজপুর২৪.কম) কাতারে বিশ্বকাপ ফুটবলের মহাযজ্ঞ শুরু হচ্ছে আজ রোববার। স্বপ্নের মতো আজ ফুটবল বিশ্বকাপের রাজকীয় ইতিহাসে প্রবেশ করতে যাচ্ছে কাতার। আল বায়েত স্টেডিয়ামে উদ্বোধনী অনুষ্ঠান হবে। স্থানীয় সময় বিকাল সাড়ে ৫টায় সেই অনুষ্ঠানে (বাংলাদেশে ৮টা ৩০ মিনিট রাত) আরব ও কাতারের ঐতিহ্য ফুটিয়ে তোলা হবে সেখানে।

আর সুরে ও গানে ঐতিহ্যবাহী এক বিশ্বকাপের সূচনা হবে। আতশবাজির ঝলকানিতে আকাশ কাঁপিয়ে বিশ্বকে জানান দিয়ে এরপরই পর্দা উঠবে গ্রেটেস্ট শো অন আর্থ খ্যাত ফুটবল বিশ্বকাপের।

সাধারণত সব আসরের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানেই সেই দেশের ইতিহাস, ঐতিহ্য, কৃষ্টি-কালচার তুলে ধরা হয় নানা আয়োজনে। এরপর থাকে খ্যাতিমান কিংবা বিশ্বখ্যাত সংগীত শিল্পীদের পারফরম্যান্স। থাকে বিশ্বকাপের থিম সং পরিবেশন।

আন্তর্জাতিক বিভিন্ন সংবাদমাধ্যমে প্রকাশিত প্রতিবেদন থেকে জানা গেছে, উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে এবারের বিশ্বকাপের থিম সং ‘দ্য ওয়ার্ল্ড ইজ ইওরস টু টেক’ গাইবেন আমেরিকার শিল্পী লিল ববি। আর থিম সং-এর সঙ্গে নৃত্য করবেন মরোক্কোর নৃত্যশিল্পী মানাল ও রেহমা। তাদের সঙ্গে থাকবেন নোরা ফাতেহিও।

এ ছাড়া কোরিয়ার জনপ্রিয় ব্যান্ড বিটিএস-এরও সঙ্গীত পরিবেশনা থাকবে। ব্যান্ডটির সদস্য জুং কুক ‘ড্রিমার্স’ গানটি পরিবেশন করবেন বলে জানা গেছে। এ ছাড়া আমেরিকার মিউজিক্যাল গ্রুপ ‘ব্ল্যাক আইড পিস’ ও ইংলিশ গায়ক রবি উইলিয়ামসের পারফরম্যান্স করার কথা রয়েছে।

গুঞ্জন শোনা গিয়েছিল, কলম্বিয়ান পপ তারকা শাকিরা ও নাইজেরিয়ান শিল্পী কিজ ড্যানিয়েলও পারফরম্যান্স করবেন। তবে বিষয়টি নিশ্চিত হওয়া যায়নি। তবে স্থানীয় সঙ্গীত শিল্পী ও নৃত্যশিল্পীরা সুযোগ পেতে পারেন পারফরম্যান্স করার।

এ ছাড়া উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রদর্শন করা হবে টুর্নামেন্টের অফিসিয়াল মাসকট লা’ইব। এরপর আতশবাজির ঝলকানিতে শেষ হবে ৪৫ মিনিটের জমকালো উদ্বোধনী অনুষ্ঠান।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠান শেষে বিশ্বকাপের উদ্বোধনী ম্যাচে মাঠে নেমে পড়বে কাতার ও ইকুয়েডরের প্লেয়াররা। এরপর কাতারের আটটি শহরে চলতে থাকবে ২৯ দিন ব্যাপী এই বিশ্বকাপ। যেখানে ৩২টি দল আটটি গ্রুপে ভাগ হয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবে বিশ্বসেরা হওয়ার।

গ্রুপপর্বে মোট ৪৮টি ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে। এই ম্যাচগুলো শেষে প্রত্যেক গ্রুপ থেকে দুটি করে দল শেষ ষোলোতে উত্তীর্ণ হবে। সেখান থেকে আটটি দল যাবে কোয়ার্টার ফাইনালে। সেখান থেকে চারটি দল নিশ্চিত করবে সেমিফাইনাল। আর শেষ চার থেকে দুটি দল সুযোগ পাবে ফাইনালে লড়াই করার। ১৮ ডিসেম্বর ফাইনালের মধ্য দিয়ে শেষ হবে ফুটবল মহাযজ্ঞ। -নিউজ ডেস্ক

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here