বীর মুক্তিযোদ্ধাদের গেজেট বাতিলের এখতিয়ার জামুকার নেই

0
34
হাইকোর্ট। পুরনো ছবি

(দিনাজপুর২৪.কম) বীর মুক্তিযোদ্ধাদের গেজেট প্রকাশ হওয়ার পরে জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল (জামুকা) তা আর যাচাই-বাছাই করে বাতিল করতে পারবে না মর্মে রায় দিয়েছেন হাইকোর্ট। আজ বৃহস্পতিবার বিচারপতি জুবায়ের রহমান চৌধুরী ও বিচারপতি এবাদত হোসেনের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জের ২২ জন নৌ-কমান্ডো বীর মুক্তিযোদ্ধার দায়ের করা রিট আবেদনের চূড়ান্ত শুনানি শেষে এ রায় দেওয়া হয়। আদালতে রিটের পক্ষে শুনানি করেন ব্যারিস্টার তৌফিক ইনাম টিপু। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল শেখ সাইফুজ্জামান। রায়ে হাইকোর্ট বলেছেন, জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল আইন ২০০২ এর ৭ ধারায় অর্পিত ক্ষমতা বলে গেজেটভুক্ত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের সাব কমিটির মাধ্যমে যাচাই-বাছাই করে গেজেট বাতিলের সিদ্ধান্ত নেওয়ার কোনো এখতিয়ার জামুকার নেই। এ কারণেই ২০১৭ সালের ৭ এপ্রিল সিদ্ধান্তটি বাতিল করেন। ‌‌

আইনজীবী তৌফিক ইনাম টিপু বলেন, ২০০৩ সালে সরকার গঠিত ৭ সদস্যের একটি যাচাই-বাছাই কমিটি ৪৭২ জন বীর মুক্তিযোদ্ধার তালিকা প্রণয়ন করে। ওই কমিটির সুপারিশের আলোকে পরে ২০০৫ সালে মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয় রিট আবেদনকারী ২২ জন নৌ-কমান্ডোকে বীর মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে গেজেটভুক্ত করে এবং বীর মুক্তিযোদ্ধাদের স্বীকৃতি হিসেবে রাষ্ট্রীয় সম্মানি ভাতা দিয়ে আসছে।

কিন্তু কিছু অতি উৎসাহী ব্যক্তির স্বেচ্ছাচারী কর্মকাণ্ডের কারণে ওই নৌ-কমান্ডো বীর মুক্তিযোদ্ধাদের আবারও যাচাই-বাছাইয়ের আওতায় আনা হয়। গেজেটভুক্ত বীর মুক্তিযোদ্ধাদের পুনরায় যাচাই-বাছাই করার বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে হাইকোর্টে রিট করেন ২২ বীর মুক্তিযোদ্ধা। রিটের শুনানি নিয়ে আদালত রুল জারি করেন। আজ রুল যথাযথ ঘোষণা করেন রায় দেন হাইকোর্ট। -ডেস্ক রিপোর্ট

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here