ব্যাটিং-বোলিং ব্যর্থতায় বাংলাদেশের পরাজয়

0
78
ছবি: সংগৃহীত

(দিনাজপুর২৪.কম) এশিয়া কাপে নিজেদের প্রথম ম্যাচে আফগানিস্তানের বিপক্ষে ব্যাট-বলের ব্যর্থতায় হারল বাংলাদেশ। দাপুটে ক্রিকেট খেলে ৭ উইকেটের জয় পেয়েছে আফগানরা। সেই সঙ্গে আসরটির সুপার ফোরেও জায়গা করে নিল মোহাম্মদ নবীর দল।

নিজেদের প্রথম ম্যাচেও আফগানিস্তান শ্রীলংকাকে বিধ্বস্ত করে জয় পেয়েছিল। তবে সুপার ফোরে উঠতে হলে বাংলাদেশকে শ্রীলংকাকে হারাতেই হবে।

মঙ্গলবার শারজাহ ক্রিকেট স্টেডিয়ামে ‘বি’ গ্রুপের ম্যাচটি বাংলাদেশ সময় রাত ৮টায় গড়ায়। প্রথমে ব্যাট করতে নেমে নির্ধারিত ২০ ওভার শেষে ৭ উইকেট হারিয়ে ১২৭ রান করে বাংলাদেশ। জবাবে ৩ উইকেট হারিয়ে ও ৯ বল বাকি থাকতে জয়ের বন্দরে পৌঁছে যায় আফগানিস্তান।

বাংলাদেশের দেওয়া ১২৮ রানের লক্ষ্যে ব্যাট করতে আফগানিস্তান। যেখানে নিজের তৃতীয় ওভারে আফগান ওপেনার রহমানউল্লাহ গুরবাজকে ফেরান সাকিব আল হাসান। স্টাম্পিংয়ের শিকার এই ব্যাটার।

দশম ওভারে দ্বিতীয় উইকেট তুলে নেয় বাংলাদেশ। ২৩ রানে থাকা হজরতউল্লাহ জাজাইকে এলবির ফাঁদে ফেলেন মোসাদ্দেক হোসেন। এরপর দীর্ঘদিন পর জাতীয় দলে ফেরা মোহাম্মদ সাইফউদ্দিন নিজের প্রথম ওভারেই উইকেটের দেখা পান। আফগান অধিনায়ক মোহাম্মদ নবীকে এলবি করেন সাইফউদ্দিন।

তবে এরপর গল্পটা শুধুই দুই আফগান জাদরানের। চতুর্থ উইকেট জুটিতে নাজিবুল্লাহ ও ইব্রাহিমের ৩৩ বলে অপরাজিত ৬৯ রানের পার্টনারশিপ জয় পাইয়ে দেয় দলটিকে। ইব্রাহিম ৪২ ও নাজিবুল্লাহ ৪৩ রানে অপরাজিত থাকেন। নাজিবুল্লাহ মাত্র ১৭ বলে একটি চার ও ৬টি ছক্কায় নিজের ইনিংস সাজান।

টস জিতে এর আগে প্রথমে ব্যাট করতে নেমে মুজিব-রশিদের তাণ্ডবে দিশেহারা বাংলাদেশকে কিছুটা স্বস্তি দেন মোসাদ্দেক হোসন।

বাংলাদেশ শিবিরে শুরু থেকেই ঘূর্ণির ঝলক দেখান মুজিব উর রহমান। এই লেগস্পিনার দুই ওপেনার মোহাম্মদ নাঈম ও এনামুল হকের পর অধিনায়ক সাকিব আল হাসানকেও তুলে নেন। এরপর আরেক তারকা স্পিনার রশিদ খান মুশফিকুর রহিমকে বিদায় করেন।

রশিদ খান ফের তার ঘূর্ণি জাল বিছিয়ে দেন। এবার তার ফাঁদে পড়েন আফিফ হোসেন। ১২ রান করে এলবি হন এই বাঁহাতি। এই ডানহাতি স্পিনার নিজের শেষ ওভারে এসে মাহমুদউল্লাহকে ফেরান। মাহমুদউল্লাহ তুলে মারতে গেলে ইব্রাহিম জাদরানের ক্যাচে পরিণত হন। ২৭ বলে ২৫ রান করেন তিনি।

শেষ দিকে ১৪ রান করে রান আউট হন মেহেদী হাসান। তবে দলের অন্যদের বাজে অবস্থাতেও অবিচল থাকেন মোসাদ্দেক হোসেন। শেষ অবধি এই ব্যাটার ৩১ বলে ৪৮ রানের দুর্দান্ত ইনিংস খেলেন। তার ইনিংসে ছিল ৪টি চার ও একটি ছক্কা। তার ব্যাটেই মূলত ৬ এর ওপর রান রেট তুলতে সক্ষম হয় বাংলাদেশ।

আফগান বোলারদের মধ্যে ৩টি করে উইকেট পান মুজিব ও রশিদ। -অনলাইন ডেস্ক

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here