মারা গেলেন বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা নারী

0
71

(দিনাজপুর২৪.কম) ‘বিশ্বের সবচেয়ে লম্বা নারী’ খ্যাত মিসরীয় নারী হুদা আব্দুল গাওয়াদ মারা গেছেন।

শনিবার (৪ ডিসেম্বর) কিডনি জটিলতায় ভুগে মাত্র ২৯ বছর বয়সে তিনি মারা যান বলে মিসরীয় গণমাধ্যমের বরাত দিয়ে সংবাদমাধ্যম গাল্ফ নিউজ জানিয়েছে।

তিন তিনটি গিনেজ ওয়ার্ল্ড রেকর্ডসের অধিকারী ছিলেন হুদা। রেকর্ডগুলো হল – ১. সবচেয়ে লম্বা হাতের পাতা (সাড়ে ৯ ইঞ্চি), ২. সবচেয়ে লম্বা পায়ের পাতা (১৩ ইঞ্চি) এবং আড়াআড়িভাবে প্রসারিত দুই বাহুর সর্বোচ্চ দূরত্ব (পৌনে আট ফুট)। তার হাতের পাতা দৈর্ঘে একটি ডিনার প্লেটের ব্যসের অধিক বড় ছিল।

তার ভাই মোহাআম্মদের বয়স ৩৪। তিনিও একাধিক টাইটেলের অধিকারী। তার বাঁ হাতের পাতার দৈর্ঘ জীবিত যেকোনো পুরুষের মধ্যে সর্বোচ্চ, ১২.৩২ ইঞ্চি। মোহাম্মদের আরো একটি রেকর্ড আছে, সেটি হলো আড়াআড়িভাবে প্রসারিত দুই বাহুর সর্বোচ্চ দূরত্ব, আট ফুট আড়াই ইঞ্চি।

এক সঙ্গে এই দুই ভাই-বোন লন্ডনে চলাচলরত একটি ডাবল-ডেকার বাসের প্রায় সমান উচ্চতাসম্পন্ন ছিলেন। তাঁদের সম্মিলিত উচ্চতা ছিল ১৩ ফুট ৭ ইঞ্চি।

১৯৯১ সালের জানুয়ারিতে জন্ম হুদার। ১২ বছর পর্যন্ত তিনি স্বাভাবিক ছিলেন। এর পরই তিনি অনুভব করেন- তিনি দ্রুত অন্যদের চেয়ে লম্বা হয়ে যাচ্ছেন। তিনি তার মা রুহির সঙ্গে একটি ছোট গ্রামে বাস করতেন। গ্রামটি মিসরের রাজধানী কায়রো থেকে ৯০ মিনিটের পথ।

হুদার ভাই মোহাম্মদের ক্ষেত্রেও একই ঘটনা। তিনিও ১২ বছর বয়স থেকে লম্বা হতে শুরু করেন। একসময় তিনি রেকর্ড-ব্রেকিং লম্বা হয়ে ওঠেন। এই দুই ভাই-বোন তাঁদের পোশাক তৈরি করতেন নিজেদের শহরের এক টেইলরের কাছ থেকে।

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here