রংপুরে দুই বাসের সংঘর্ষে নিহত ৭, আহত ৭০

0
65

(দিনাজপুর টোয়েন্টিফোর ডটকম) রংপুর-দিনাজপুর মহাসড়কের তারাগঞ্জে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এ ঘটনায় বাসের হেলপারসহ সাতজন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে পুলিশ। এ দুর্ঘটনায় আহত হয়েছেন অন্তত ৭০ জন বাসযাত্রী। তাদেরকে উদ্ধার করে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে বিভিন্ন ওয়ার্ডে ভর্তি করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক।১২টার দিকে রংপুর-দিনাজপুর মহাসড়কে তারাগঞ্জের খারুভাজ সেতুর কাছে এ দুর্ঘটনা ঘটে। এ সময় ফায়ার সার্ভিসের তিনটি ইউনিট ও পুলিশ তাদেরকে উদ্ধার করে। পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনাস্থলে পাঁচজন নিহত হয়েছেন। আহতদের উদ্ধার করে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে আরো দুজন মারা যান। এ নিয়ে মৃত্যুর সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৭ জনে।

পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা জানিয়েছেন বৈরী আবহাওয়ার মধ্যে উদ্ধার কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। স্থানীয়রাও সহযোগিতা করেছেন। দুর্ঘটনাকবলিত এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। নিহত ও আহতদের স্বজনদের আহাজারিতে ভারি হয়ে উঠেছে চারপাশ।

স্থানীয় সংবাদকর্মী দেলোয়ার হোসেন জানান, রাত পৌনে ১টার দিকে প্রচণ্ড বৃষ্টি হচ্ছে। এ সময় দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। পুলিশ জানিয়েছে জোয়ানা পরিবহন ও ইসলাম পরিবহনের মধ্যে এই দুর্ঘটনা ঘটে। তবে বৃষ্টির মধ্যেই রাত সোয়া ১২টার দিকে রংপুর-দিনাজপুর মহাসড়কের শলেয়াশাহ খারুভাজ সেতুর কাছে যাত্রীবাহী জোয়ানা পরিবহনের সঙ্গে ইসলাম পরিবহনের একটি যাত্রীবাহী বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়।

দুর্ঘটনার খবর পেয়ে পুলিশ, ফায়ার সার্ভিস ও স্থানীয়রা বৃষ্টিতে ভিজে উদ্ধার কাজ পরিচালনা করছেন। এ পর্যন্ত দুর্ঘটনায় নিহত ৭ জনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে।

এদিকে রমেক হাসপাতালে রোগীদের চিকিৎসা দিতে হিমসিম খাচ্ছেন চিকিৎসকরা। নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে জানিয়েছে পুলিশ এবং হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

দুর্ঘটনার বিষয়টি নিশ্চিত করেন তারাগঞ্জ হাইওয়ে থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাহবুব মোর্শেদ।

তিনি জানান, ঘটনাস্থলে পাঁচজন নিহত হয়েছে তবে মেডিক্যালে আরো মারা গেছে কিনা আমার কাছে এখন পর্যন্ত রিপোর্ট আসেনি। রিপোর্ট আসলে বলা যাবে। পাঁচজনের মরদেহ উদ্ধার করা হয়েছে। নিহতদের দুজনের পরিচয় মিলেছে একজনের নাম জীবন অন্যজনের নাম ধনঞ্জয়। আহত অন্তত ৭০ জনকে রংপুর মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের মধ্যে কয়েকজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক।

তবে নিহতের সংখ্যা বাড়তে পারে বলে জানিয়েছেন চিকিৎসক। আহত রোগীদের মধ্যে কয়েকজন নারীও রয়েছেন।

তবে রংপুর মেডিক্যাল হাসপাতালে যেসব রোগী চিকিৎসা নিচ্ছেন তাদের মধ্যে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চল্লিশজনের মতো বলে দাবি করছেন চিকিৎসক। -ডেস্ক রিপোর্ট

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here