সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল : শেখ হাসিনার অধীনে কোনো নির্বাচনে যাবে না বিএনপি

0
16

(দিনাজপুর২৪.কম) আগামী দ্বাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে সামনে রেখে নিজেদের অবস্থান স্পষ্ট করলেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

মঙ্গলবার নয়াপল্টনে দলের কেন্দ্রীয় কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে দলের অবস্থান ব্যখা করে তিনি বলেন, ‘আমরা অত্যন্ত স্পষ্টভাবে বলেছি, বর্তমান অবৈধ শেখ হাসিনা সরকারের অধীনে বিএনপি কোনো নির্বাচনে যাবে না। এর মধ্যে এতোটুকু ফাঁকফোকর নেই। নির্বাচনের আগে সরকারকে বিদায় নিয়ে নিরপেক্ষ সরকারের কাছে দায়িত্ব হস্তান্তর করতে হবে। সেই নিরপেক্ষ সরকার নিরপেক্ষ কমিশন গঠনের (ইসি) পর একটি, অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের সুযোগ সৃষ্টি হবে।’

সোমবার বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত দলের জাতীয় স্থায়ী কমিটির ভার্চুয়াল বৈঠকের সিদ্ধান্ত তুলে ধরতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

স্থায়ী কমিটির ওই সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যরিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, ড. আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী, বেগম সেলিমা রহমান ও ইকবাল হাসান মাহমুদ টুকু।

‘আগামী সংসদ নির্বাচনে ৩০০ আসনে ইলেক্ট্রোনিক ভোটিং মেশিনে (ইভিএম) ভোটগ্রহণের সক্ষমতা ইসির নেই’ প্রধান নির্বাচন কমিশনারের এমন বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, ‘ইসি যা বলার বলে দিয়েছে। এখানে আমাদের তেমন বলার কিছু আছে বলে মনে হয় না। এ সরকার সচেতনভাবে, অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে দেশের নির্বাচন ব্যবস্থা, গণতন্ত্রকে ধ্বংস করছে।’

‘নিজেদের অস্তিত্ব রক্ষায় বিএনপি নির্বাচনে আসবে’ আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের এমন বক্তব্যের তীব্র সমালোচনা করে সংবাদ সম্মেলনে ওবায়দুল কাদেরকে বিএনপিতে যোগ দেওয়ার আহ্বান জানান মির্জা ফখরুল।

‘বিএনপির জ্যেষ্ঠ নেতাদের পক্ষ থেকে বলা হয়েছিল ঈদের পরে আন্দোলন কাকে বলে দেখিয়ে দেব’ এ বিষয়ে প্রশ্ন করা হলে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আমাদের সবকিছুই আন্দোলনের অংশ, আমরা যা কিছু করছি তা-ই আন্দোলন। আন্দোলন বলতে আপনারা কী বোঝেন তা জানি না, আমরা যারা আন্দোলন করি তারা বুঝি আন্দোলন মানে জনগণকে সম্পৃক্ত করা। সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডের বিরুদ্ধে কর্মসূচি দিয়েছি এটাও আন্দোলনের কর্মসূচি, জিয়াউর রহমানের শাহাদৎবার্ষিকী উপলক্ষে যে কর্মসূচি দিয়েছি সেটাও আন্দোলনের কর্মসূচি। অস্থির হবেন না, আপনারা যেটা দেখতে চান সেটা খুব শিগগিরই দেখতে পাবেন।’

সয়াবিন তেলের মূল্য বৃদ্ধি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘এ সরকারের পরিবর্তন হলে দ্রব্যমূল্যসহ সবকিছুই মানুষের ক্রয়ক্ষমতার মধ্যে আসবে, নিয়ন্ত্রণ হবে।’

শ্রীলঙ্কার পরিস্থিতি থেকে বর্তমান সরকারের শিক্ষা নেয়া উচিত কি না জানতে চাইলে মির্জা ফখরুল বলেন, এ সরকার শিক্ষা নিতে জানে না, যদি জানত তাহলে এ দশ বছরে শিক্ষা নিতে পারত। শ্রীলঙ্কাতে নদীতে ঝাঁপিয়ে পড়েছে সব, আর এরা বঙ্গোপসাগরে ঝাঁপিয়ে পড়বে।

সংবাদ সম্মেলনে মির্জা ফখরুল বলেন, ‘আজ ১০ মে আমাদের কাছে অত্যন্তু গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের নেত্রী খালেদা জিয়া ১৯৮৪ সালের এ দিনে বিএনপির চেয়ারপারসনের পূর্ণাঙ্গ দায়িত্ব লাভ করেছিলেন। সারাটা জীবন ধরেই তিনি গণতন্ত্রের জন্য, গণতন্ত্রকে প্রাতিষ্ঠানিক রুপ দেয়ার জন্য গণতন্ত্রের পক্ষে সংগ্রাম করেছেন, লড়াই করেছেন। এখনো তিনি গণতন্ত্রের প্রতিষ্ঠার জন্য বিগত কয়েকবছর ধরে কারান্তরীন আছেন। এখন তিনি গৃহবন্দী থেকেও গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করে চলেছেন।’

স্থায়ী কমিটির সদস্যদের সভার সিদ্ধান্ত জানাতে গণমাধ্যমে পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বাংলাদেশে সাড়ে ৩ কোটি শিশুর রক্তে উচ্চ মাত্রার সিসার বিষক্রিয়ায় মৃত্যু হারে বিশ্বে চতুর্থ অবস্থানে আসায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন স্থায়ী কমিটির সদস্যরা। এ ছাড়া রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডারস (আরএসএফ) ২০২২ সালের প্রকাশিত বিশ্ব সংবাদ মাধ্যমের স্বাধীনতা সূচকে গত বছরের তুলনায় ১০ ধাপ পিছিয়ে ১৮০ দেশের মধ্যে বাংলাদেশর অবস্থান ১৬২তম হওয়ায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করা হয়। পাশাপাশি দুর্নীতির মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত আওয়ামী লীগ সংসদ সদস্যের বিদেশ ভ্রমনে বিস্ময় প্রকাশ করেন স্থায়ী কমিটির সদস্যরা।

তারা মনে করেন, এ ঘটনা থেকে প্রমাণিত যে, এ রাষ্ট্রের সব প্রতিষ্ঠানকে দলীয়করণ করা হচ্ছে। আওয়ামী লীগের সদস্য হওয়ার কারণে তাকে ইমিগ্রেশনে এর পক্ষ থেকে বিদেশ ভ্রমণে বাধা দেওয়া হয়নি। -ডেস্ক রিপোর্ট

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here