স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা অরেঞ্জ হত্যায় ব্যবহৃত পিস্তল উদ্ধার

0
11
স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা নাজমুল হাসান অরেঞ্জ। ফাইল ছবি

(দিনাজপুর২৪.কম) বগুড়ায় স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা নাজমুল হাসান অরেঞ্জ হত্যায় ব্যবহৃত পিস্তলটি উদ্ধার হয়েছে।

গ্রেফতার যুবলীগ নেতা শুটার রাসেল হোসেনের সহযোগিতায় সদর থানা পুলিশ মঙ্গলবার গভীর রাতে শহরের মালগ্রাম ডাবতলা এলাকার ড্রেন থেকে অস্ত্রটি উদ্ধার করে।

বুধবার দুপুরে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা জাকির আল আহসান দাবি করেন, অবৈধ এ বিদেশি পিস্তল দিয়েই অরেঞ্জকে গুলি করা হয়েছিল।

পুলিশ ও এজাহার সূত্র জানায়, এলাকায় আধিপত্য বিস্তার নিয়ে গত ২ জানুয়ারি রাত সাড়ে ৮টার দিকে বগুড়া শহরের মালগ্রাম ডাবতলা এলাকায় প্রতিপক্ষের গুলিতে জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগের সাহিত্য ও সংস্কৃতিকবিষয়ক সহসম্পাদক নাজমুল হাসান অরেঞ্জ ও তার বন্ধু একই সংগঠনের ৮ নম্বর ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি মিনহাজ শেখ আপেল আহত হন।

তাদের বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। মাথায় গুলিবিদ্ধ অরেঞ্জের অবস্থার অবনতি হলে তাকে হাসপাতালের আইসিইউতে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়েছিল। সেখানে ১০ জানুয়ারি রাত ১১টার দিকে চিকিৎসকরা অরেঞ্জকে মৃত ঘোষণা করেন।

পরদিন দুপুরে ময়নাতদন্ত শেষে তাকে নামাজগড় কবরস্থানে দাফন করা হয়। জেলা স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা অরেঞ্জ শহরের মালগ্রাম দক্ষিণপাড়ার রেজাউল ইসলামের ছেলে।

আপেল একই সংগঠনের ৮ নম্বর ওয়ার্ড কমিটির সভাপতি। এ ব্যাপারে নিহত অরেঞ্জের স্ত্রী স্বর্ণালী আকতার সদর থানায় রাসেল, খায়রুল ও টিপুসহ সাতজনের নাম উল্লেখ করে অজ্ঞাত আরও ৪-৫ জনের বিরুদ্ধে মামলা করেন।

তদন্তকারী কর্মকর্তা এসআই জাকির আল আহসান জানান, মামলার পরপরই অন্যতম আসামি স্বেচ্ছাসেবক লীগের সদস্য টিপুকে গ্রেফতার করা হয়। এছাড়া র্যা ব-৩ সদস্যরা ঢাকার বনানী থেকে স্বেচ্ছাসেবক লীগ নেতা রাসেল ও র্যা ব-১২ বগুড়া শহর থেকে যুবলীগ ৮ নম্বর ওয়ার্ড কমিটির সাধারণ সম্পাদক খায়রুল ইসলামকে গ্রেফতার করেন।

রাসেলের স্বীকারোক্তিতে মঙ্গলবার রাত দেড়টার দিকে ঘটনাস্থল শহরের মালগ্রাম ডাবতলার একটি ড্রেন থেকে অরেঞ্জ হত্যায় ব্যবহৃত পিস্তলটি উদ্ধার করা হয়েছে। তবে পিস্তলে ম্যাগজিন থাকলেও গুলি ছিল না। বুধবার বিকালে গ্রেফতার আসামিদের আদালতে সোপর্দ করা হয়েছে। এছাড়া অপর আসামিদের গ্রেফতারে অভিযান চলছে।-অনলাইন ডেস্ক

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here