হাবিপ্রবিতে ইঞ্জিনিয়ারিং, ভেটেরিনারি ও বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের ওরিয়েন্টেসন কার্যক্রম অনুষ্ঠিত

0
38

(দিনাজপুর২৪.কম) হাজী মোহাম্মদ দানেশ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (হাবিপ্রবি) ২০২২ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক পর্যায়ের লেভেল-১, সেমিস্টার-১ এর ভর্তিকৃত শিক্ষার্থীদের নিয়ে ৩ টি অনুষদের ওরিয়েন্টেসন কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ অডিটোরিয়াম ১ এ সকাল ১০ টা থেকে দুপুর ১২ টা পর্যন্ত ইঞ্জিনিয়ারিং অনুষদ অডিটোরিয়াম ২ এ সকাল ১০.৩০ থেকে দুপুর ১২.৩০ পর্যন্ত ভেটেরিনারি অ্যান্ড এনিমেল সায়েন্স অনুষদ এবং দুপুর ২.৩০ থেকে বিকাল ৪.৩০ পর্যন্ত বিজনেস স্টাডিজ অনুষদের ওরিয়েন্টেসন অনুষ্ঠিত হয়। অনুষদগুলোর ওরিয়েন্টেসনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হাবিপ্রবির মাননীয় ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. কামরুজ্জামান, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন অনুষদের সকল বিভাগের চেয়ারম্যানবৃন্দ, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর প্রফেসর ড. মোঃ মামুনুর রশিদ, ছাত্র পরামর্শ ও নির্দেশনা বিভাগের পরিচালক প্রফেসর ড. ইমরান পারভেজ। ওরিয়েন্টেসন কার্যক্রমে সভাপতিত্ব করেন স্ব স্ব অনুষদের সম্মানিত ডীন মহোদয়গণ।

ওরিয়েন্টেসন কার্যক্রমে মাননীয় ভাইস-চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. এম. কামরুজ্জামান প্রধান অতিথির বক্তব্যের শুরুতে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুননেছা মুজিবসহ ১৯৭৫ সালের ১৫ আগস্ট নিহত সকল শহীদ ও মহান মুক্তিযুদ্ধে ৩০ লক্ষ শহীদের স্মৃতির প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদন করেন। তিনি বলেন, আজকের দিনটি আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি দিন, ১৯৭২ সালের আজকের দিনে পাকিস্তানের কারাগার থেকে মুক্তি পেয়ে লন্ডন ও নয়াদিল্লি হয়ে দেশে ফিরে আসেন বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। যার নেতৃত্ব দীর্ঘদিন লড়াই সংগ্রাম করে আমরা পেয়েছি স্বাধীনতা। একটি স্বাধীন সার্বভৌম বাংলাদেশ পৃথিবীর মানচিত্রে স্থান করে দেয়ার লক্ষ্যে তিনি ৪৬৮২ দিন কারাভোগ করেছিলেন। বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের সোনার বাংলা বিনির্মাণে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন তারই রক্ত ও আদর্শের যোগ্য উত্তরসূরি মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। আমাদেরকেও তার স্বপ্নের সারথি হতে হবে। তিনি বলেন, স্কুল কলেজ জীবন শেষ করে তোমরা নিজেদের মেধার স্বাক্ষর রেখে বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হয়েছি। এখন তোমরা হয়তো তোমাদের বাবা মায়ের সার্বক্ষণিক গাইডেন্স পাবেনা তবে এক্ষেত্রে নিজেদের সচেতন হতে হবে। নিজের জন্য কোনটা ভাল , কোনটা খারাপ সে সিদ্ধান্ত নিজেকেই গ্রহণ করতে হবে। বিশ্ববিদ্যালয় হল মুক্ত বুদ্ধি চর্চার কেন্দ্র, নিজেকে সুন্দরভাবে প্রতিষ্ঠিত করা ও সমৃদ্ধ করার চমৎকার একটি প্লাটফর্ম। সামনে তোমাদের যে সুন্দর ভবিষ্যতের হাতছানি সেটিকে ধারণ করতে হবে। যে স্বাধীনতা পেয়েছো সেটার অপব্যবহার করা যাবেনা, সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষমতা অর্জন করতে হবে। ভাল জিনিসকে যে যতো বেশি গ্রহণ করবে, জীবনে সে ততো বেশি সফল হবে। তিনি বলেন, র‌্যাগিং এর বিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান জিরো টলারেন্স। কোথাও র‌্যাগিং এর কোন তথ্য পাওয়া গেলে সাথে সাথে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। পরিশেষে তিনি সুন্দরভাবে ওরিয়েন্টেসন কার্যক্রম আয়োজনের জন্য সংশ্লিষ্টদের ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। প্রেসরিলিজ

মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here