• Top News

    এই সরকার ভোট ডাকাতির সিন্ডিকেট, লুটপাটের সিন্ডিকেট: মান্না

      প্রতিনিধি ১৮ মার্চ ২০২৩ , ৩:৪৫:৫২ প্রিন্ট সংস্করণ

    সমাবেশে বক্তব্য দিচ্ছেন নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান

    (দিনাজপুর২৪.কম) নাগরিক ঐক্যের সভাপতি মাহমুদুর রহমান মান্না বলেছেন, ‘সরকার দ্রব্যমূল্য নিয়ন্ত্রণ করতে পারছে না। তাদের কোনো কিছু করার ক্ষমতাও নেই। এই সরকার নিজেই একটা সিন্ডিকেট; ভোট ডাকাতির সিন্ডিকেট, লুটপাটের সিন্ডিকেট, জনগণের ওপর নির্যাতন করবার সিন্ডিকেট।’

    যুগপৎ আন্দোলনের অংশ হিসেবে আজ শনিবার রাজধানীর পল্টন মোড়ে এক প্রতিবাদ সমাবেশে এসব কথা বলেন তিনি।

    মাহমুদুর রহমান মান্না বলেন, ‘তাদের (সরকার) সিন্ডিকেটের শাখা হচ্ছে দ্রব্যমূল্য বাড়িয়ে অথবা সুবিধা মতো জনগণের পকেট কেটে নিজেদের পকেট ভারি করবার জন্যে কতগুলো নিজেদের বন্ধু-বান্ধব, আত্বীয়-স্বজন তাদের মিলিয়ে সমগ্র জনগোষ্ঠীকে ধরে অত্যাচার-নির্যাতন চালিয়ে যাওয়া। এজন্য আমরা খুব স্পষ্ট কণ্ঠেই বলতে চাই, এর বিরুদ্ধে লড়াইটাই চূড়ান্ত।’

    নাগরিক ঐক্যের সভাপতি বলেন, ‘রোজার মধ্যে বিরাট করে আন্দোলনের কর্মসূচি হয়ত আমরা বড় দেব না। কিন্তু আন্দোলনের এই বাতাসটাকে ধীরে ধীরে আরও বাতাস দিতে থাকব, চাঙ্গা করতে থাকব যাতে রোজার পরে আমরা আমাদের পাওনা কড়ায়-গন্ডায় আদায় করে নিতে পারি- সেই পরিকল্পনা আমরা করছি। আমরা সবার সমর্থন চাই। দেশে-বিদেশে যারা আছেন সবার সমর্থন চাই।’

    আওয়ামী সরকারের সর্বগ্রাসী দুর্নীতি, বিদ্যুৎ-গ্যাসের মূল্যবৃদ্ধি, নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্যমূল্যের লাগামহীন ঊর্ধ্বগতির প্রতিবাদে এবং অবাধ, সুষ্ঠু ও গ্রহণযোগ্য নির্বাচনের লক্ষ্যে নিরপেক্ষ-নির্দলীয় সরকারের দাবিসহ ১০ দাবিতে এই সমাবেশ করে গণতন্ত্র মঞ্চ।

    গণতন্ত্র মঞ্চের পক্ষ থেকে জাতীয় সমাজতান্ত্রিক দলের (জেএসডি) সাধারণ সম্পাদক শহিদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপন বলেন, ‘আমরা গণতন্ত্র মঞ্চ থেকে আগামী রমজান মাসে আগামী আন্দোলনকে সংগঠিত করার জন্য, বেগবান করার জন্য আমরা জোরদার করার জন্য গণসংযোগ কর্মসূচি, প্রচার-প্রচারণার কর্মসূচি, বৈঠক-কর্মিসভা রাখব। এ ব্যাপারে সুনির্দিষ্ট প্রোগ্রাম গণতন্ত্র মঞ্চ থেকে আমরা গণমাধ্যমকে জানিয়ে দেব।’

    বাংলাদেশের বিপ্লবী ওয়ার্কার্স পার্টির সাধারণ সম্পাদক সাইফুল হক বলেন, ‘আমাদের তিস্তা থেকে ভারতের পশ্চিমবঙ্গ সরকার দুইটা খাল কেটে তারা আবার সেখানে পানি প্রত্যাহার করবার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। প্রয়োজনীয় অর্থ ইতোমধ্যে বরাদ্ধ করা হয়েছে। এতদিন পার হয়ে গেল যে, সরকার এতখানি নতজানু এই পর্যন্ত ভারতের সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে একটা সাধারণ প্রতিবাদ করার সাহস পায়নি।’

    বাংলাদেশ গণঅধিকার পরিষদের সদস্যসচিব নুরুল হক নূর বলেন, ‘আওয়ামী লীগের পান্ডারা সুপ্রিম কোর্ট প্রাঙ্গণ তছনছ করেছে। সুপ্রিম কোর্ট আর সুপ্রিম কোর্ট নাই। এটা এখন আওয়ামী লীগের দখলে চলে গেছে। এর বিরুদ্ধে আমাদেরকে গণপ্রতিরোধ গড়ে তুলতে হবে, এই সরকারের বিরুদ্ধে পাল্টা প্রতিরোধে গড়ে তুলতে হবে।’

    জেএসডির সাধারণ সম্পাদক শহিদ উদ্দিন মাহমুদ স্বপনের সভাপতিত্বে এবং ছাত্রলীগ (রব) সভাপতি তৌফিক উজ-জামান পীরাচা’র সঞ্চালনায় সমাবেশে গণসংহতি আন্দোলনের নির্বাহী সমন্বয়কারী আবুল হাসান রুবেল, রাষ্ট্র সংস্কার আন্দোলনের কেন্দ্রীয় নেতা সৈয়দ হাসিব উদ্দিন হোসেন, নাগরিক ঐক্যের সাধারণ সম্পাদক শহীদুল্লাহ কায়সার প্রমুখ বক্তব্য দেন। সমাবেশের পর তারা বিজয়নগর সড়ক পর্যন্ত মিছিল করে। -ডেস্ক রিপোর্ট

    মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

    আরও খবর

    Sponsered content