• সারাদেশ

    কিডনি কেনাবেচা চক্রের মূলহোতাসহ আটক ৯

      প্রতিনিধি ১২ জানুয়ারি ২০২২ , ৫:৪৫:০৪ প্রিন্ট সংস্করণ

    (দিনাজপুর২৪.কম) জয়পুরহাটের কালাই উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালিয়ে কিডনি কেনাবেচা চক্রের মূলহোতাসহ চক্রের ৯ সদস্যকে আটক করেছে র‌্যাব। মঙ্গলবার রাতে কালাই উপজেলার জয়পুর বহুতি, বৈরাগীহাট ও  মোসলেমগঞ্জ গ্রাম থেকে তাদের আটক করা হয়।

    আটককৃতরা হলেন- চক্রের মূলহোতা খাজা ময়েন উদ্দিন (৪৪), আজাদুল ইসলাম (৩৭), আব্দুল করিম ফোরকান আলী (৪৫), আফসার মন্ডল (৫৬), নুরুল ইসলাম (৫১), বাবলু ফকির (৫২), সোবহান মন্ডল (৫২) ও তার ভাই মোজাহিদুল মন্ডল (৪১) এবং সাজেদুল ফকির (৩৭)।

    বুধবার বেলা সাড়ে ১১টায় র‌্যাব-৫ জয়পুরহাট ক্যাম্পে আয়োজিত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে সাংবাদিকদের এসব তথ্য জানান, র‌্যাব-৫ এর অধিনায়ক লে. কর্নেল মো. জিয়াউর রহমান তালুকদার।

    তিনি বলেন, কিডনি বেচাকেনায় জড়িত সংঘবদ্ধ চক্রটি বিভিন্ন দলে বিভক্ত হয়ে গরিব, দরিদ্র ও আর্থিক অনটনে জর্জরিত মানুষদের টার্গেট করে। এরপর অধিক অর্থের লোভ দেখিয়ে তারা সুকৌশলে গোপনে অস্ত্রোপচারের মাধ্যমে কিডনি সংগ্রহ করে মোটা অঙ্কের বিনিময়ে বিভিন্ন দেশের ক্রেতা-বিক্রেতা ও দালালদের কাছে সরবরাহ করে থাকে।

    তিনি আরো বলেন, যাদের কাছ থেকে চক্রের সদস্যরা কিডনি সংগ্রহ করেন, তাদেরকে চুক্তি অনুযায়ী টাকা পরিশোধ করেন না।  উল্টো তাদের হুমকি-ধামকি দেন। এভাবে চক্রটির কাছে অনেকেই ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছেন। এমন অভিযোগের প্রেক্ষিতে গত বছরের ১১ অক্টোবর একটি মামলা ও সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে র‌্যাব-৫ গোপনে অভিযান পরিচালনা করে ওই চক্রের ৫ সদস্যকে আটক করে। সেসময় ওই চক্রের ১০-১২ জন পালিয়ে যান। এর সূত্র ধরেই মঙ্গলবার রাতে অভিযান চালিয়ে র‌্যাব তাদের আটক করা হয়।

    জিয়াউর রহমান আরো বলেন, আটককৃতদের বিরুদ্ধে এর আগেও মানবদেহে অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সংযোজন আইনে একাধিক মামলা রয়েছে। তাদের বিরুদ্ধে সংশ্লিষ্ট থানায় আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে। -অনলাইন ডেস্ক

    মতামতের জন্য সম্পাদক দায়ী নয়।

    আরও খবর

    Sponsered content