বৃহস্পতিবার , ১৩ জুন ২০২৪ | ৩০শে আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
  1. অন্যান্য
  2. আইন আদালত
  3. আর্ন্তজাতিক
  4. এক্সক্লুসিভ
  5. কৃষি ও কৃষাণ
  6. ক্যাম্পাস
  7. ক্রিকেট
  8. গল্প-সাহিত্য
  9. চাকুরি
  10. জাতীয়
  11. জেলার খবর
  12. টালিউড
  13. টেনিস
  14. তথ্য-প্রযুক্তি
  15. ধর্ম ও ইসলাম

বগুড়ায় ব্যাংকের সিন্দুক কেটে ২৯ লাখ টাকা লুট

প্রতিবেদক
admin
জুন ১৩, ২০২৪ ১০:০৩ পূর্বাহ্ণ

(দিনাজপুর টোয়েন্টিফোর ডটকম) বগুড়ায় আইএফআইসি ব্যাংকের এক উপশাখায় চুরি সংঘটিত হয়েছে। চোরের দল ব্যাংকে প্রবেশ করে সিন্দুক ভেঙে ২৯ লাখ ৪০ হাজার ৬১৮ টাকা নিয়ে গেছে।

বুধবার (১২ জুন) রাতের যেকোনো সময় বগুড়া শহরতলীর মাটিডালী বিমানমোড়ে ব্যাংকের উপশাখায় চুরির ঘটনা ঘটায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সাইহান ওলিউল্লাহ।

সরেজমিনে দেখা গেছে, মাটিডালী বিমান মোড়ে এক ভবনের দোতলায় আইএফআইসি ব্যাংকের উপ শাখার কার্যক্রম চলে। বুধবার রাতের যে কোনো সময় চোরের দল ছাদের সিঁড়ি ঘরের তালা ভেঙে ভবনে প্রবেশ করে। এরপর দরজার তালা ভেঙে ব্যাংকের ভিতরে যায়। পরে ব্যাংকে রাখা সিন্দুক ভেঙে সমুদয় টাকা নিয়ে আবারো সিঁড়ি ঘর দিয়ে পালিয়ে যায়।

ব্যাংকের উপশাখার ম্যানেজার ফাহমিদা ফিরোজ জানান, বুধবার ব্যাংকিং কার্যক্রম শেষ করে সিন্দুকে ২৯ লাখ ৪০ হাজার ৬১৮ টাকা রেখে যাওয়া হয়। বৃহস্পতিবার সকালে ব্যাংকে এসে সিন্দুক ভাঙা দেখে চুরির বিষয়টি নজরে আসে।ব্যাংকের উপশাখার ম্যানেজার ফাহমিদা ফিরোজ আরও বলেন, উপশাখায় চার জন কর্মকর্তা- কর্মচারিকর্মরত আছেন। এখানে কোনো নৈশ প্রহরী ছিল না। ব্যাংকে কোনো সিসি ক্যামেরাও নেই। তাদের উপশখাটি বীমাকৃত। কোনো টাকা খোয়া গেলে বীমা কোম্পানি সমুদয় টাকা পরিশোধ করবে। একারণে তারা নৈশ প্রহরী রাখার বিষয়ে গুরুত্ব দেননি। এই উপশাখায় ৪৭ লাখ টাকা পর্যন্ত রাখা হয়েছিল। পূর্বে কখনও এমন সমস্যা হয়নি।

ওসি সাইহান ওলিউল্লাহ জানান, ব্যাংকটিতে কোনো নিরাপত্তা প্রহরি ছিলেন না। বিকেলে ব্যাংকে কর্মকর্তারা তাদের কার্যক্রম শেষ করে চলে যান। বৃহস্পতিবার (১৩ জুন) সকালে এসে তারা ব্যাংকের সিন্দুকটি কাটা দেখতে পেয়ে পুলিশে খবর দেন। প্রাথমিকভাবে ২৯ লাখ টাকা লুটের হিসেব নিশ্চিত হওয়া গেছে।

ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জেলা পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার স্নিগ্ধ আকতার বলেন, চুরির ঘটনায় জড়িতদের শনাক্তের কাজ শুরু করা হয়েছে। ব্যাংক কর্তৃপক্ষের উপশাখায় নিরাপত্তার কোনো ব্যবস্থাই তারা করেননি। জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে বিভিন্ন ব্যাংক কর্তৃপক্ষকে এপর্যন্ত ছয় বার তাগিদ দেওয়া হয়েছে নিজস্ব নিরাপত্তামূলক ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য। কিন্তু কোনো ব্যাংক কর্তৃপক্ষের তেমন কোনো পদক্ষেপ নাই।

উল্লেখ্য, এর আগেও গত ২৬ জানুয়ারি বগুড়া সদর উপজেলার পল্লীমঙ্গল হাটে এনআরবিসি ব্যাংকের উপশাখার ভল্ট ভেঙে ৯ লাখ টাকা চুরির ঘটনা ঘটে। -নিউজ ডেস্ক

সর্বশেষ - ক্যাম্পাস